বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

নিজের বাংলা ভাষা ও বানান নিয়ে আমার তেমন আত্মবিশ্বাস নেই। কিছু লিখতে গেলে ঘন ঘন অভিধান ঘাঁটি। এতে আমার লজ্জা বা কষ্ট কোনোটাই নেই। তারপরও জানি, অনেক ভুল থেকে যায়। বহু বয়স অবধি আমি জানতাম না যে ‘অভিজ্ঞান’ শব্দটির সঙ্গে জ্ঞানের কোনো সম্পর্ক নেই। অভিজ্ঞান মানে হচ্ছে প্রতিনিধি, প্রতীক। ‘ক্রন্দসী’ শব্দটির সঙ্গেও যে ক্রন্দনের কোনো যোগ নেই, তা আমার জানা ছিল না। আসলে তো ক্রন্দসী মানে হচ্ছে স্বর্গ, মর্ত্য ও পাতাল। প্রিয় মেষ, ভাষার এই মাসে এসব কথা আমার খুব করে মনে হচ্ছে। রবীন্দ্রযুগে বানানরীতি ভিন্ন ছিল। তাই বলে রবীন্দ্রনাথকে উদ্ধৃত করতে গেলে আমরা তাঁর মূল বানান সংশোধন করতে পারি না। ওটা যেমন ছিল, তেমনই থাকতে দিতে হয়। যেকোনো লেখকের ব্যবহৃত মূল বানান উদ্ধৃত করতে গেলে তা পরিবর্তনের নিয়ম নেই। এইটুকু বলে জানাতে চাই, আপনার জীবনে এখন নতুন এক অধ্যায় শুরু হতে যাচ্ছে।

রবীন্দ্রসংগীত সম্পর্কে আমার একটি ব্যক্তিগত বিচার এখানে উল্লেখ করি। রবীন্দ্রনাথের একেকটি গান গেয়েছেন অসংখ্য শিল্পী। এসবের মধ্যে কিছু শিল্পীর কিছু গান আমার কাছে এমন মনে হয়, যা অনন্য। ধরুন, ‘যে রাতে মোর দুয়ারগুলি ভাঙল ঝড়ে’—রাজেশ্বরী দত্ত; ‘আকাশভরা সূর্য-তারা’—দেবব্রত বিশ্বাস; ‘কালো তা সে যতই কালো হোক’—সুচিত্রা মিত্র; ‘সখী ভালোবাসা কারে কয়’—কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়; ‘তুমি সন্ধ্যার মেঘমালা’—চিন্ময় চট্টোপাধ্যায়; ‘আমি জেনে শুনে বিষ করেছি পান’—সাগর সেন; ‘আমার জীবনপাত্র উচ্ছলিয়া’—শ্যামল মিত্র; ‘ওই জানালার কাছে বসে আছে’—সদ্যপ্রয়াত দ্বিজেন মুখোপাধ্যায় ইত্যাদি। আপনি আমার সঙ্গে একমত না হলেও আপত্তি নেই। যা-ই হোক, প্রিয় বৃষ, চলতি সপ্তাহটি আপনার জন্য শুভ।

আমেরিকার কোনো এক বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ছাত্রের অভ্যাস ছিল, সে ক্লাসে ঘুমাত। একদিন এক অধ্যাপক তার ঘুম ভাঙিয়ে বলেন: দেখো, তুমি প্রতিদিন ক্লাসে ঘুমাও। এতে আমি কিছু মনে করি না। তবে ঘুমানোর আগে তুমি যে আমাকে শুভরাত্রি বলো না, এতে আমি কষ্ট পাই। চলতি সপ্তাহে নিজের সৌজন্যসূচক অভিব্যক্তিগুলোর দিকে নজর রাখবেন। কেউ একটা ছোট উপকার করলেও তাকে ধন্যবাদ জানাতে ভুলবেন না। আপনার সপ্তাহ অত্যন্ত শুভ।

ঘটনাটি আমার কবিবন্ধু আলতাফ হোসেনের মুখে শোনা। তিনি একসময় আমার সহকর্মী ছিলেন। একবার তিনি এক চিত্র প্রদর্শনীতে গিয়ে মতামতের খাতায় অনেক লোকের অজস্র বানান ভুল দেখতে পান। দেখে তিনি নিজের মন্তব্যে একটিমাত্র বাক্য লেখেন: ‘বূল বানানের চরাচরি দেকিয়া মুগদ হৈলাম।’ অর্থাৎ ভুল বানানের ছড়াছড়ি দেখিয়া মুগ্ধ হইলাম। আমার এই লেখা পড়লে বিশুদ্ধ কবি আলতাফ হোসেন নিশ্চয়ই ঘটনাটা মনে করতে পারবেন। প্রিয় কর্কট, বাংলা বানান সম্পর্কে নিজে সচেতন হোন, অন্যকে সচেতন করুন। শুভ হোক আপনার চলতি সপ্তাহ।

ছেলেবেলায় স্কুলজীবনে মহান সব শিক্ষক পেয়েছিলাম। পরে মনে হয়েছে, আজও মনে হয়, তাঁরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর যোগ্যতা রাখতেন। পাঠ্যবই ছাড়িয়ে তাঁরা চলে যেতেন নানা আকর্ষক প্রসঙ্গে। মনে পড়ে, প্রসন্নকুমার বিদ্যাবিনোদের কথা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যখন সিলেটে আসেন, তখন তিনি ছোট ছিলেন। ওই বয়সে রবীন্দ্রনাথের পাঞ্জাবি তুলে তাঁর গা ছোঁয়ার লোভ সামলাতে পারেননি। এই গল্পটি তিনি খুব রসিয়ে রসিয়ে করতেন। প্রিয় সিংহ, চলতি সপ্তাহটিতে আপনার কিছু অভিনব অভিজ্ঞতা হবে।

আগের যুগে তো সব কণ্ঠশিল্পীই শুদ্ধ বাংলা উচ্চারণের দিকে দারুণ যত্নশীল ছিলেন। তাঁদের মধ্যে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, সতীনাথ মুখোপাধ্যায় ও সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়ের বাংলা উচ্চারণ বিশেষভাবে সমাদৃত ছিল। আমাদের দেশে প্রয়াত মাহমুদ উন নবীর উচ্চারণ ছিল শুদ্ধ ও পরিশীলিত। তাঁর সুযোগ্য দুই কন্যা সামিনা চৌধুরী ও ফাহমিদা নবীর স্বাভাবিক উচ্চারণও চমৎকার। প্রিয় কন্যা, শুধু এ সপ্তাহে নয়, সারা জীবনই শুদ্ধ বাংলা উচ্চারণের চর্চা চালিয়ে যান। কল্যাণ হোক আপনার।

জনপ্রিয় টেলিভিশন সাংবাদিক ও কণ্ঠশিল্পী নবনীতা চৌধুরী রাশিতে তুলা। পারিবারিকভাবেই আমার দীর্ঘ পরিচিত। তিনি যেমন মেধাবী, তেমনই তেজি। বিনয় ও সৌজন্যের ক্ষেত্রেও তাঁর জুড়ি নেই। সদা হাসিমুখ, সদা কর্মচঞ্চল। নবনীতার দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে বলতে চাই, প্রিয় তুলা, আপনার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যও ওই রকমই। চলতি সপ্তাহে পেশাক্ষেত্রে আপনার উন্নতিযোগ দেখা যায়।

অন্ধকার কেটে যাচ্ছে। ওই তো পুব আকাশে আলোর রেখা। এখন আর চিন্তা কী! হাসিমুখে সামনে পা ফেলুন। জয় হোক!ধনুর সৃজনশীলতা বর্তমান সময়ে অত্যন্ত সক্রিয় হয়ে উঠবে। তিনি ক্রমাগত সামনের দিকে যাবেন। এই সম্মুখযাত্রা তাঁকে অনেক সাফল্য এনে দেবে। কল্যাণ হোক!

হলিউডের অতীতদিনের অভিনেত্রী অড্রে হেপবার্ন ছিলেন আমার এক প্রিয় শিল্পী। সব সময়ই তাঁর খুব ছোট চুল দেখেছি। এটিই দিয়েছিল তাঁকে আলাদা একটা মাধুর্য। উল্লেখ্য, ইউনিসেফের বিশেষ দূত হিসেবে তিনি একবার এসে ঢাকা সফর করে গেছেন। প্রিয় মকর, চলতি সপ্তাহটি আপনাকে স্মৃতির জগতে নিয়ে যাবে। শুভ হোক!

কুম্ভ রাশির রাজীব জানিয়েছেন, তাঁর সন্দেহ, আমার রাশিও কুম্ভ। তাঁকে জানাই, আমার রাশি কুম্ভ নয়, ধনু। এতে কিছু আসে যায় না। সব রাশির মধ্যেই জটিলতা ও সরলতা আছে। কুম্ভ নারী-পুরুষ অত্যন্ত মহান চরিত্রের মানুষ। তাঁরা সহজেই নেতৃত্বের স্থানে আসেন। চলতি সপ্তাহটি কুম্ভর জন্য বিশেষ শুভ। জটিল কিছু কি লিখলাম?

মীন রাশির অন্তর্গত কোনো নারী-পুরুষের মধ্যে বর্তমান সময়ে দুঃখ বা হতাশা থাকা উচিত নয়। এখন তাঁর রমরমা সময়। ভালোবাসা পাওয়া, দেওয়া এবং জীবনের সব ক্ষেত্রে সাফল্য লাভ করা এখন তাঁর জন্য স্বাভাবিক। এই কথা জেনে রেখে তাঁকে সামনে অগ্রসর হতে বলি। জয় হোক!

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »