বার্তাবাংলা ডেস্ক »

রাজশাহীর পবা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে এক বছরের জন্য স্থগিত হয়েছে এই নির্বাচন।

পবার পারিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল বারী ভুলুর করা এক রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার এই আদেশ দেন আদালত। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে আগামী ১০ মার্চ পবায় নির্বাচনের কথা ছিল।

মঙ্গলবার আদালতের এ আদেশ সংক্রান্ত কাগজপত্র হাতে পেয়েছেন সাইফুল বারী ভুলু। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সঙ্গে পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নের মুরশইল ও কেচুয়াতৈল গ্রামের সীমানা নিয়ে জটিলতা রয়েছে। এটি নিষ্পত্তিতে ওই রিট আবেদন করেন তিনি। এরপরই ওই আদেশ দেন আদালত।

পবা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মীরদাহ মোসাম্মদ শাহনাজ পারভীন বলেন, নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পর আমরা নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এ অবস্থায় মঙ্গলবার নির্বাচন স্থগিত সংক্রান্ত কাগজপত্র হাতে এসেছে। এগুলো জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়ে দিয়েছি।

২০১৪ সালের চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পবায় দ্বিতীয়বারের মতো উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন জামায়াত নেতা মকবুল হোসেন। ওই নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান হন ওয়ার্কার্স পার্টির আশরাফুল হক তোতা এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হন জামায়াতের খায়রুন নেশা। পরের বছর উপজেলা চেয়ারম্যানের মৃত্যু হলে উপ-নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ভোটগ্রহণের তিন দিন আগে এ নির্বাচন স্থগিত করে দেন হাইকোর্ট। বর্তমানে পবায় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খায়রুন নেশা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »