বার্তাবাংলা ডেস্ক »

জয়া আহসান২০১৮ সালের ৫ জানুয়ারি মুক্তি পেয়েছিল সাইফুল ইসলাম পরিচালিত পুত্র ছবিটি। ২০১৯ সালের ৪ জানুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত বিসর্জন । দুই ছবির পার্থক্য হলো, একটি বাংলাদেশের ছবি আরেকটি কলকাতা থেকে আসছে আমদানি–রপ্তানি নীতিমালায় ভর করে। তবে দুই ছবির একটা মিল আপনার মন গর্বে ভরিয়ে দেবে। সেটি হলো দুই ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন আমাদের দেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। ২০১৮ কিংবা ২০১৯, দুটো বছর শুরুই হলো জয়া আহসানকে দিয়ে। মাঝখানে চলে গেছে ১২ মাস। এ ১২ মাসে বসে ছিলেন না এই অভিনেত্রী। বরং বিগত বছরগুলোর চেয়ে ২০১৮ সালেই নতুন করে জ্বলে উঠেছেন যেন। এটাকে জ্বলে ওঠা না বলে নতুন পরিচয়ে আবির্ভূত হওয়া বলাই ভালো।

২০১৮ সালে মুক্তি পেয়েছে জয়া আহসান অভিনীত ও প্রযোজিত দেবী চলচ্চিত্রটি। সরকারি অনুদানে নির্মিত এ ছবিটি জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের দেবী উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি। পরিচালক অনম বিশ্বাসের প্রথম পরিচালনা। জয়া আহসানের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘সি তে সিনেমা’র প্রথম চলচ্চিত্র এটি।

তবে এত কিছুর চেয়ে প্রযোজক জয়া গত বছর ছিলেন দাপুটে। একটা ছবিকে কী করে মানুষের কাছে নিয়ে যেতে, কতটা প্রচারণা করলে দেশে–বিদেশে দর্শকের দোরগোড়ায় পৌঁছানো যায়—এটাই দেখিয়েছেন তিনি।

প্রযোজক জয়াকে প্রসঙ্গ ধরিয়ে দিতেই গত মঙ্গলবার বললেন, ‘আমি তেমন কিছুই করিনি। যতটুকু করেছি এটা সততার সঙ্গে করার চেষ্টা করেছি। আমি তো আসলে একটা দায়িত্ব নিয়েছিলাম। দেবীর দায়িত্ব। সেই দায়িত্বটা পালন করেছি মাত্র। একজন প্রযোজক হিসেবে এটা তো আমাকে করতেই হবে।’

জয়া আহসান এমনই। বরাবরই কাজকে গুরুত্ব দিয়ে কথা বলেন। যখন কথা হচ্ছিল তখন তিনি ভারতে। আগামীকাল কলকাতায় মুক্তি পাচ্ছে তাঁর অভিনীত বিজয়া চলচ্চিত্রটি। কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত এ ছবির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এ ছবিরই প্রথম কিস্তি ছিল বিসর্জন। বিজয়া নিয়ে কথা তো হলোই। বললেন দেবী নিয়ে তাঁর ভ্রমণের একটা অংশও।

‘আমার ছবিটা সাধারণ দর্শকেরা যেভাবে পছন্দ করেছেন। তেমনি সমালোচকেরা করেছেন। এ দুটো মহলের পছন্দের তালিকায় ওঠা সহজ ছিল না। এ ক্ষেত্রে আমি নিজেকে সফল বলতে পারি।’

এতটুকু বলে জানিয়ে রাখলেন, প্রবাসেও ছবিটির জয়জয়কার। বললেন, ‘নানা দেশে ছবিটির প্রদর্শনী শেষে যে পরিমাণ দর্শকের ভালোবাসা পেয়েছি, সেটা ভোলার নয়। একই সঙ্গে ব্যবসাও করেছে। তবে এটা আমার একার অর্জন নয়। ছবির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার। তাদের নিয়েই দারুণ একটা বছর গেল আমার।’

কথা শেষ করার আগে আগে বললেন, ‘বিসর্জন ছবিটি সবাইকে হলে গিয়ে দেখার অনুরোধ করছি। ছবিটি হয়তো কলকাতার, কিন্তু এটার প্রেক্ষাপট পুরোটাই বাংলাদেশের। গল্প, চরিত্র সবই।’

নতুন বছরটাও জয়ার জন্য ভালো যাবে, এমন প্রত্যাশা শুধু জয়ার ভক্তদের নয়, স্বয়ং জয়ারও। বছরের শুরুতেই মুক্তি পেতে যাওয়া বিজয়া নিয়ে প্রচারণায় আছেন। খুব তাড়াতাড়ি শুরু করবেন তাঁর প্রযোজনায় দ্বিতীয় ছবি ফুড়ুৎ–এর কাজ।

তবে বছর শেষে জয়ার জন্য সুখবর আরও একটা এসেছে। ভারতের পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়ার বর্ষসেরা বাঙালি নারী অভিনেত্রীর তালিকায় আছে জয়ার নাম। জানা গেছে, কলকাতায় মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা সিনেমার অভিনেত্রীদের মধ্যে পত্রিকাটির বিবেচনায় বছরের (২০১৮) সেরা হয়েছেন আটজন অভিনেত্রী। সে তালিকার শুরুর দিকেই রয়েছে ঢাকার অভিনেত্রী জয়ার নাম। সৃজিত মুখার্জির এক যে ছিল রাজা ছবিতে ‘মৃণ্ময়ী’ চরিত্রে অভিনয়ের সূত্রে এ তালিকাভুক্তি।

জয়া অবশ্য সব অর্জন ঢেলে দিলেন তাঁর ভক্তদের দুয়ারে। বাংলাদেশের মানুষদের কাছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »