বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

পুরনো নিয়নবাতির কারণে অনেক সময় বাতির নিচেই অন্ধকার দেখাতো ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকা। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) অধিকাংশ এলাকায় এলইডি বাতি স্থাপন করা হলেও পিছিয়ে ছিল ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। এরই ধারাবাহিকতায় পুরনো নিয়নবাতি বদলে ঢাকা উত্তরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় বসছে আধুনিক লাইট ইমিটিং ডায়োড (এলইডি) বাতি।

প্রাথমিক অবস্থায় অত্যাধুনিক এলইডি বাতি রাজধানীর গুলশান, বনানী, বারিধারা এলাকার সড়কে বসানো হবে। এর আগে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উত্তরা এবং পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সামনের রাস্তায় এলইডি বাতি স্থাপন করা হয়। তবে প্রথমদিকেই ডিএনসিসির সব ওয়ার্ডে এলইডি বাতির সেবা পাওয়া যাবে না। সবগুলো ওয়ার্ডে এলইডি বাতির সেবার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত। তখন পুরো শহরের এলইডি বাতি ডিএনসিসি কন্ট্রোল রুম থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

প্রাথমিক অবস্থায় উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন উত্তরা এলাকায় মোবাইলের সিম থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে সড়কবাতি। সিমের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ে এ বাতিগুলো জ্বালানো ও নেভানো যাবে। এমন প্রকল্পও বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে এ প্রকল্প শুরু হলেও গত আগস্ট থেকে সড়কবাতিগুলো বসানোর কাজ শুরু হয়। ইন্টারনেটের ডাটা ব্যবহার করে সিমের মাধ্যমেই ডিএনসিসির প্রধান কার্যালয়ে স্থাপন করা মূল সার্ভার থেকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে সবকটি সড়কবাতি। প্রাথমিক অবস্থায় এ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে রাজধানীর উত্তরা এলাকাতে।

এ প্রকল্পের পরিচালক ডিএনসিসি প্রকৌশল বিভাগের (বিদ্যুৎ সার্কেল) নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন এলইডি বাতির পরিচালনা ব্যবস্থা টাইমার নির্ভর। সময় হলেই বাতি জ্বলবে এবং নিভবে। এ সময় নিয়ন্ত্রণ করা হবে মোবাইলের সিমের মাধ্যমে। এতে বিদ্যুৎ খরচ কমে আসবে।’

গুলশান, বনানী, বারিধারা এলাকার সড়কে এলইডি বাতি লাগানোর পর আরও যেসব এলাকায় এ বাতি লাগানোর চিন্তা করা হয়েছে সেগুলো হলো- প্রগতি সরণির আবুল হোটেল থেকে শুরু হয়ে যমুনা ফিউচার পার্ক পর্যন্ত এলাকা, সার্ক ফোয়ারার সামনে থেকে জাহাঙ্গীর গেট, মহাখালী হয়ে স্টাফ কোয়ার্টর পর্যন্ত। এছাড়া বিজয় সরণি, মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ এবং নতুন বাজার থেকে শুরু করে কাকলী পর্যন্ত এলাকায় পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে বসানো হবে এলইডি বাতি।

প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক দায়িত্বে থাকাকালেই রাজধানীকে আলো ঝলমলে করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। সে সময় ডিএনসিসির এলাকার জন্য পাঁচ হাজার সিসি ক্যামেরা ও ৩৯ হাজার ৬০০ এলইডি বাতি স্থাপনে প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়েছিল। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তা পিছিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুরনো নিয়নবাতি বদলে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় এলইডি বাতি পর্যায়ক্রমে বসানোর কাজ শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন।

প্রথম দিকে গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে এসব লাগানো হবে। পরে ধাপে ধাপে বাকি এলাকায়ও বাতি লাগানোর কাজ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

 

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »