বার্তাবাংলা ডেস্ক »

৬৬০ রানের বিশাল লক্ষ্য। এই লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয়ার পর নিউজিল্যান্ড পুরো দুইদিন হাতে পেয়েছে শ্রীলঙ্কাকে অলআউট করার জন্য। চতুর্থ ইনিংসে এতবড় লক্ষ্য পাড়ি দেয়া যে সম্ভব হবে না কোনো দলের পক্ষে, সেটাও আপাতত জানা আছে।

তবুও লড়াই করে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা। বিশাল লক্ষ্য পাড়ি দিতে নেমে চতুর্থ দিনের পুরোটা পার করে ফেললো তারা। উইকেট পড়েছে ৬টি। রান সংগ্রহ হয়েছে ২৩১। জিততে হলে এখনও ৪২৯ রান করতে হবে লঙ্কানদের। হাতে আছে আর মাত্র ৪ উইকেট। এই ৪ উইকেট দিয়ে কি পারবে তারা টেস্ট বাঁচাতে?

এতবড় রানের সমূদ্র পাড়ি দেয়া এর আগে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে কেউ পারেনি। মাঝ পথেই থমকে যেতে হয়েছে। সবারই ধারণা ছিল, বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তৃতীয় দিন শেষ বিকেলে ৯ রান তুলতেই যারা ২ উইকেট হারিয়ে বসেছিল, তারা চতুর্থদিন বড়জোর দ্বিতীয় সেশন পর্যন্ত নিজেদের টেনে নিতে পারবে।

কিন্তু ১৪ রান নিয়ে দিনেশ চান্ডিমাল এবং ৬ রান নিয়ে কুশল মেন্ডিস এবং ২ উইকেটে ২৪ রান নিয়ে চতুর্থদিন সকালে ব্যাট করতে নেমে দারুণ জবাব দিতে থাকেন কিউই পেসারদের। দু’জনের ব্যাটে গড়ে ওঠে ১১৭ রানের দারুণ এক জুটি।

শতরানের জুটি গড়ার পর ১৪৭ বলে ৬৭ রান করে আউট হয়ে যান কুশল মেন্ডিস। দিনেশ চান্ডিমাল যেন নিজেকে আঠা দিয়ে উইকেটের সঙ্গে সেঁটে রাখেন। ২২৮ বল মোকাবেলা করে মাত্র ৫৬ রানে আউট হন তিনি।

লঙ্কানদের জন্য বিপদের দিনে বড় দুঃসংবাদ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের ইনজুরি। ২২ রান করার পর ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে মাঠের বাইরে চলে যান তিনি। মূলতঃ দিনের অধিকাংশ সময়ই কাটিয়ে দিয়েছিলেন চান্ডিমাল আর মেন্ডিস।

এরপর বাকিরা নিয়মিত বিরতিতে আসা-যাওয়ার মিছিলে থাকলেও দিন শেষে লঙ্কানদের অলআউট করতে পারেনি। ১৮ রান করে আউট হন রোশেন সিলভা। ১৯ রান করেন নিরোশান ডিকভেলা।

চতুর্থ দিন শেষে ২২ রানে কুশল পেরেরা এবং সুরাঙ্গা লাকমাল ১৬ রান নিয়ে অপরাজিত রয়েছেন। আগের ইনিংসে মাত্র ১৪ বলের ব্যবধানে ৬ উইকেট নেয়া ট্রেন্ট বোল্ট দ্বিতীয় ইনিংসে এখনও পর্যন্ত নিয়েছেন মাত্র ১ উইকেট। টিম সাউদি ২টি এবং নেইল ওয়াগনার ৩ উইকেট নেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »