বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ভোটারদের নির্বিঘ্নে ও নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন উর রশিদ।

তিনি বলেন, ভোটের দিন সকল ধরণের নিরাপত্তা দিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে। আমরা সকল কেন্দ্রে নজরদারি রাখছি। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে বিশেষভাবে আমাদের নজর থাকবে। ভোটারদের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো সংশয় নেই। কেউ ভোটকেন্দ্র ও তার আশপাশে কোনো ধরনের অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টার করলে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ভোটকেন্দ্রে গিয়ে বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

শনিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসপি হারুন এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ভোটের দিনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে ইতিমধ্যে ৫ ভাগে ভাগ করে ব্রিফ করেছি। ইতিমধ্যে পুলিশ ও আনসার সদস্যদের মাধ্যমে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স পাঠানো হচ্ছে। ভোটের দিনে অইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর। আমরা প্রার্থীদের যেমন সিকিউরিটি দিয়েছি। একইভাবে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতেও আমরা বেশি পরিমাণ পুলিশ নিয়োগ করবো। নদী বেষ্টিত কেন্দ্রগুলোতে আমাদের বিশেষ নজরদারি থাকবে।

এসপি হারুন অর রশিদ বলেন, দুই হাজারের মতো পুলিশ সদস্য ভোটের দিন কাজ করবে। আজকের মধ্যে আরও পুলিশ সদস্য এসে যুক্ত হবে। প্রতিটি থানায় একজন করে অ্যাডিশনাল এসপি তত্ত্বাবধান করবেন। আমরা মনে করি, নারায়ণগঞ্জে যেহেতু কোনো ঝামেলা হয়নি, আইনশৃঙ্খলার কোনো বিঘ্নে ঘটেনি, কালও তেমন কিছু হবে না। আমাদের পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনী যারা রয়েছেন তারা একসঙ্গে কাজ করবে।

পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় ভোটের আগের দিনই ব্যালটে সিল মারা হতে পারে- বিএনপির এমন শঙ্কার জবাবে পুলিশ সুপার বলেন, এমন হওয়ার প্রশ্নই আসে না। নারায়ণগঞ্জে পুলিশ সদস্য যারা রয়েছেন, তারা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড করার জন্য কাজ করছেন। এ কারণে নারায়ণগঞ্জে প্রতিটা প্রার্থী সমান সুযোগ পেয়েছেন। এনারায়ণগঞ্জে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। আমি এটুকু নিশ্চিত করছি, যারা ভোট দিতে আসবে তারা যেন তাদের ভোটটা দিতে পারে সেটি আমরা নিশ্চিত করবো।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »