বার্তাবাংলা ডেস্ক »

রোববার রাতে ‘কফি উইথ কারান’ সিজন-৬ এর শোয়ে হাজির হয়েছিলেন বাহুবলীর তিন তারকা। প্রভাস, রানা দগ্গুবাতি ও পরিচালক এস এ রাজামৌলির। ‘কফি উইথ কারান’-এ আসবে আর অন্য ধরনের জটিল প্রশ্নের সামনে পড়তে হবে না তা কি হয়? অন্যদের মতো প্রভাস, রানা ও রাজামৌলিকে জটিল প্রশ্নের জালে ফাঁসালেন কারাণ জোহর।

এদিনের অনুষ্ঠানে বাহুবলীর পরিচালক রাজামৌলিকে প্রশ্ন করা হয়- প্রভাস না কি রানা কে আগে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে পারেন? উত্তরে রাজামৌলি বলেন, ‘আমার মনে হয় না প্রভাস বিয়ে করবে, কারণ ও ভীষণ কুঁড়ে, আর বিয়েটা লম্বা একটা প্রসেস। প্রথমে মেয়ে খোঁজা, তার পরে নিমন্ত্রণ করা, বিয়ের অনুষ্ঠান, আরও অনেক কিছু। আর প্রভাস যা কুঁড়ে তাতে ও বিয়ে করবে বলে মনে হয় না। আর রানা বড় বেশি ধরা-বাঁধার মধ্যে চলে। ওর জীবন একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বন্দী। ১ থেকে ১০ বছর, ১০ থেকে ১৫ বছর, ১৫ থেকে ২০ বছর। আর এই সময়সীমার মধ্যে ওর বিয়েটা যদি হয়েও যায়, ওটা কতদিন টিকবে জানা নেই।’

অনুষ্ঠানে আনুশকা শেঠির সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয়টিও খুব কায়দা করে এড়িয়ে যান প্রভাস। তাকে আনুশকার সঙ্গে প্রেমের গুজবের প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি কারানের উদ্দেশে বলেন, ‘এই সব গুজব তুমিই রটিয়েছো (হাসি)। কারানের পাল্টা প্রশ্ন- বাহুবলী তারকা কী মিথ্যে বলছেন? উত্তরে প্রভাস বলেন, ‘হ্যাঁ।’ তাই কফি উইথ কারানেও প্রভাস-আনুশকা সম্পর্কের সত্যতা নিয়ে ধোঁয়াশা থেকে যায়।

প্রসঙ্গত, ‘বাহুবলী-দ্য বিগিনিং’ ও ‘বাহুবলী-দ্য কনক্লুশন’ বা ‘বাহুবলী-টু’। ২০১৫ সালের ১০ জুলাই মুক্তি পায় ‘বাহুবলী-দ্য বিগিনিং’। ২০১৭ সালের ২৮ এপ্রিল মুক্তি পায় ‘বাহুবলী-টু’ সিনেমাটি। এস এস রাজামৌলি পরিচালিত এ দুটি সিনেমায় জুটি বেঁধে অভিনয় করেন প্রভাস ও আনুশকা শেঠি। মুক্তির পর সিনেমা দুটি ব্যবসায়িকভাবে যেমন সফলতা লাভ করে, তেমনি তুমুল প্রশংসা কুড়ান এই জুটি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »