বার্তাবাংলা ডেস্ক »

সম্পূর্ণ একটি মেসিময় ম্যাচ। লেভান্তের মাঠে গিয়ে যেন স্বাগতিকদের বিপক্ষে একাই খেললেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা। নিজে করলেন হ্যাটিট্রক। সঙ্গে সতীর্থদের দিয়ে করালেন আরও দুটি গোল। লেভান্তের মাঠ থেকে মেসির একার নৈপুণ্যে ৫-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে ঘরে ফিরেছে বার্সেলোনা। ৫ গোলের পেছনেই সক্রিয় অবদান রাখলেন বিশ্বসেরা এই ফুটবলার।

সে সঙ্গে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানে নিজেদের অবস্থান নিরঙ্কুশ করে রাখলো কাতালানরা। ১৬ ম্যাচ শেষে বার্সার পয়েন্ট ৩৪। সমান সংখ্যক ম্যাচ শেষে দ্বিতীয় স্থানে থাকা সেভিয়ার পয়েন্ট ৩১। ২৯ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।

লা লিগা মৌসুমে এটাই মেসির প্রথম হ্যাটট্রিক। স্প্যানিশ ঘরোয়া লিগে এ নিয়ে ৩১তম হ্যাটট্রিক করলেন এলএম টেন। হ্যাটট্রিক ছাড়াও মেসি অপর দু’টি গোল করান লুইস সুয়ারেজ ও জেরার্ড পিকেকে দিয়ে।

মেসির অসাধারণ নৈপুণ্যে ম্যাচ জেতার পর গোলদাতা জেরার্ড পিকে তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তিনি বলেন, ‘মেসি এবং সুয়ারেজ হচ্ছেন বিশ্বের সেরা স্ট্রাইকিং জুটি। মেসির শিরা-উপশিরায় যেন গোল খেলা করে। এরই মধ্যে লিও (মেসি) সম্পর্কে অনেক কিছুই বলা হয়েছে। তিনি যে বিশ্বসেরা সেটা সবাই জানে।’

আজই ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট পুরস্কার উঠবে মেসির হাতে। ইউরোপিয়ান সেরা লিগগুলোয় সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে গোল্ডেন বুটের পুরস্কার দেয়া হয়। রেকর্ড পঞ্চমবার এই পুরস্কার উঠতে যাচ্ছে বার্সা তারকার হাতে। ২০১৭-১৮ মৌসুমেই একই সাফল্য হয়তো বা পেতে যাচ্ছেন তিনি।

কারণ, লেভান্তের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করার পর এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত লা লিগায় ১৪ গোল জমা হয়েছে মেসির নামের পাশে। ইউরোপের ৫টি সেরা লিগের গোলদাতাদের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ফুটবলারের চেয়ে ২টি গোল বেশি রয়েছে মেসির।

লেভান্তের বিপক্ষে মেসির মাস্টারক্লাস শুরু হয়েছে সুয়ারেজকে দিয়ে গোল করানোর মধ্য দিয়ে। ৩৫ মিনিটে মেসির পাস থেকে বল পেয়েই দারুণ গোলটি করেন সুয়ারেজ। এরপর ৪৩ মিনিমে মেসি নিজেই গোল করলেন। সার্জিও বুস্কেটসের পাস থেকে বল পেয়ে লেভান্তের জালে বল জড়ান মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই (৪৭ মিনিটে) নিজের দ্বিতীয় এবং দলের তৃতীয় গোল করেন মেসি। খেলার ৬০ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করে ফেলেন মেসি। ৮৮ মিনিটে জেরার্ড পিকেকে দিয়ে ৫ম গোল করার মেসি। সে সঙ্গে ৫-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে জয়ও নিশ্চিত হয় বার্সার।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »