বার্তাবাংলা ডেস্ক »

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্র অনুযায়ী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে ২ হাজার ২৭৯ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ও ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। তবে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা আজ (৩ ডিসেম্বর, সোমবার) থেকে নির্বাচন কমিশনের কাছে আপিল করতে পারবেন। ইসি আবদনের ওপর শুনানি করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবে।

জানা গেছে, আগামী ৫ ডিসেম্বর (বুধবার) পর্যন্ত মনোনয়ন ফিরে পেতে ইসিতে আপিল করা যাবে। আপিল আবেদন পাওয়ার পর ৬-৮ ডিসেম্বর আপিল আবেদনের শুনানি শেষে সিদ্ধান্ত জানাবে ইসি। আপিলের জন্য প্রার্থীদের অবশ্যই রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে যেতে হবে।

ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান জানান, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তিরা প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর অভিযোগ দাখিল করতে পারবেন। এটা করতে হবে আগামী ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে। আর কমিশন প্রার্থীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে ৬, ৭ ও ৮ ডিসেম্বর শুনানি করে সিদ্ধান্ত দেবেন। এ ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনই আপিল কর্তৃপক্ষের ভূমিকা পালন করবেন।

এর আগে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, আপিল কর্তৃপক্ষের কাছে সিদ্ধান্তে প্রার্থীরা সন্তুষ্ট না হন তাহলে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি আদালতেও যেতে পারবেন।
গতকাল ২ ডিসেম্বর (রোববার) সারাদেশে ৭৮৬টি মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তরা। আর নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হয়েছেন ২ হাজার ২৭৯জন। এর মধ্যে ঢাকা অঞ্চলের ছয় জেলায় দাখিল হওয়া ৪৭৭টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে ১১৬টিই বাতিল হয়েছে। বৈধ ঘোষণা করা হয়ে ৩৬৩টি।

গত সংসদ (দশম) নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫৪ জন নির্বাচিত হলেও এবার কোনো আসনেই একক প্রার্থী নেই। এবার ৩৫টি আসনে কোনো প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়নি। ২৬৫টি আসনে এক বা একাধিক প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। সর্বোচ্চ বাতিল হয়েছে কুড়িগ্রাম-৪ আসনে। সেখানে জমা পড়েছিল ২৩টি মনোনয়নপত্র। যার মধ্যে ১৩টি বাতিল করা হয়েছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »