বার্তাবাংলা ডেস্ক »

আজোভ সাগরে জাহাজ পাঠাতে ন্যাটোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেনকো। ক্রিমিয়া উপকূলে রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের সামরিক উত্তেজনার মধ্যেই এই আহ্বান জানানো হলো।

জার্মানির বিল্ড পত্রিকাকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে প্রেসিডেন্ট পোরোশেনকো বলেন, ইউক্রেনকে সাহায্য করতে এবং নিরাপত্তা দিতে এই জাহাজগুলো পাঠানো হবে বলে আশাবাদী তিনি।

রোববার রাশিয়া ক্রিমিয়া উপকূলে ইউক্রেনের তিনটি জাহাজ লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে এবং ২৪ নাবিককে আটক করে। এই ঘটনায় ইউক্রেনের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে ন্যাটো। যদিও ইউক্রেন ন্যাটোর সদস্য দেশ নয়।

তবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ২০১৯ সালের আসন্ন নির্বাচনে নিজের জনপ্রিয়তা বাড়াতেই এমন সামরিক উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি করেছেন পোরোশেনকো।

নিজের দেশে পোরোশেনকোর জনপ্রিয়তা তলানিতে পৌঁছেছে। সাম্প্রতিক এক জরিপ বলছে, মাত্র ১০ শতাংশ ভোটার তাকে পরবর্তী নির্বাচনে ভোট দেবেন বলে মনস্থির করেছেন। এছাড়া প্রায় ৫০ শতাংশ মানুষ তাকে কোন অবস্থাতেই ভোট দেবেন না বলে জানিয়েছেন।

ইউক্রেনের সঙ্গে চরম উত্তেজনার মধ্যেই নতুন এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করতে যাচ্ছে রাশিয়া। এই ক্ষেপণাস্ত্র ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য। অপরদিকে, ইউক্রেন সীমান্তে ৩০ দিনের জন্য মার্শাল ল’র অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বিডকে দেয়া সাক্ষাতকারে পোরোশেনকো বলেন, ভ্লাদিমির পুতিন আজোভ সাগর দখল করতে চাচ্ছেন। তিনি বলেন, জার্মানি আমাদের ঘনিষ্ঠ মিত্র দেশ। আমরা আশা করছি ন্যাটোভুক্ত দেশগুলো ইউক্রেনকে সাহায্য করতে এবং নিরাপত্তা দিতে আজোভ সাগরে নৌবাহিনীর জাহাজ পাঠাবে। তবে পোরোশেনকোর এই বিবৃতির বিষয়ে তাৎক্ষণিক সাড়া দেয়নি ন্যাটো।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »