বার্তাবাংলা ডেস্ক »

স্বামী-স্ত্রীর মজার অনেক স্মৃতি থাকে। একজনের মৃত্যুর পর অপরজন সেই স্মৃতি বয়ে বেড়ান। এবার এমনই এক স্মৃতি ধরে রাখতে মৃত স্বামীর শরীরের চামড়া তুলে রাখলেন স্ত্রী। অবাক করা এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন কানাডার এক স্ত্রী শেরিল। স্বামীর শরীরে আঁকা ট্যাটু সংগ্রহ করতেই তিনি এ কাজ করেছেন বলে জানা যায়।

গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, মাত্র ৪১ বছর বয়সে মারা যান কানাডার সাসকাটুনের বাসিন্দা ক্রিস ওয়েনজেল। এমন সময় শোকাহত স্ত্রী শেরিলের কর্মকাণ্ড দেখে অবাক হয়েছেন ক্রিসের স্বজনরা। কারণ স্বামীর মৃতদেহ থেকে তার চামড়া খুলে নিয়ে ফ্রেমে বাঁধিয়ে রাখলেন শেরিল।

শেরিল জানান, তার স্বামী ক্রিস পেশায় ছিলেন ট্যাটু আর্টিস্ট। নিজের শরীরও তিনি ভরিয়ে দিয়েছিলেন আশ্চর্য সব ট্যাটু দিয়ে। তিনি আলসারেটিভ কোলাইটিস নামের এক দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত ছিলেন। মৃত্যু আসন্ন বুঝতে পেরে ক্রিস শেরিলকে বলেন, তার শিল্পকে সংরক্ষণ করতে। তিনি চেয়েছিলেন, বংশধররা যেন তার শিল্পকর্মের স্বাদ নিতে পারে।

শেরিল আরও জানান, গত অক্টোবরে ক্রিস মারা যান। স্বামীর শেষ ইচ্ছা পূরণ করতেই তিনি মৃতদেহ থেকে চামড়া তুলে নিয়ে বাঁধিয়ে রাখার উদ্যোগ নেন। এতে কেউ কিছু বললেও তার কিছু আসে-যায় না। দেওয়ালে কেন ট্যাটুর ছবি থাকতে পারবে না?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘সেভমাইইংক’ ক্রিসের দেহ থেকে ট্যাটু সংরক্ষণের কাজ করে। সংস্থাটি জানায়, তারা তিন মাস সময় নেবে ক্রিসের শরীরের ট্যাটুগুলো সংরক্ষণ করতে। তবে স্ত্রী শেরিলের শরীরেও বেশকিছু ট্যাটু এঁকেছিলেন ক্রিস। শেরিলও চান তার মৃত্যুর পর সেই ট্যাটুও সংরক্ষণ করা হোক।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »