বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় সংসদ নির্বাচন পেছানো হবে কি-না সে সিদ্ধান্ত সোমবার (১২ নভেম্বর) জানানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

রোববার (১১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসার বিষয়ে সিইসি বলেন, ‘আমাদের কাছে এখনও আসেনি। আমি এখনও পাইনি।’

আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্যান্য দল ও জোটের নির্বাচন পেছানোর দাবি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এখনতো বলতে পারব না। যেহেতু আমরা এখনও সিদ্ধান্ত নেইনি। আমাদের সঙ্গে এগুলো নিয়ে কথাই হয়নি।’
সরকারি দলও নির্বাচন পেছানো যেতে পারে বলে জানিয়েছে। বিষয়টি সিইসির নজরে আনলে তিনি বলেন, ‘এ খবরটিও আমরা পাইনি।’

বিএনপি বলছে নির্বাচনে আসবে, আপনিও চেয়েছেন সব দল নির্বাচনে আসুক এ বিষয়ে সিইসি বলেন, ‘এখনও চাই। আমরা অবশ্যই চাই সব দল নির্বাচনে আসুক। তবে কখন কোথায় কি করা হবে না হবে সেটি এখনি কিছুই বলতে পারব না। কারণ কারো সঙ্গেই এ বিষয়ে কথা হয়নি।’

এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টায় ভোট গ্রহণের তারিখ পেছানোর অনুরোধ জানিয়ে সিইসিকে চিঠি দেন যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। এ ছাড়া বিকেলে নির্বাচন কমিশনের কাছে ভোট এক মাস পেছানোর লিখিত দাবি জানান ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

অপরদিকে রোববার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি চলাকালে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, অধিকাংশ রাজনৈতিক দল ও জোটের দাবির প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভোটের তারিখ পিছিয়ে দিলে আপত্তি করবে না আওয়ামী লীগ।

উল্লেখ্য, আগামী ২৩ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনের ভোট। এ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ২২ নভেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর। আর প্রতীক বরাদ্দ ৩০ নভেম্বর।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »