বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় দফা সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৭ নভেম্বর বেলা ১১টায়। সেখানে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে কয়েকজন সংবিধান বিশেষজ্ঞ থাকবেন।

রোববার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সংক্ষিপ্ত আকারে সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রী বরাবর দ্বিতীয় বার চিঠি দেন ড. কামাল।

এরপর রাতে ১৪ দলের সঙ্গে সংলাপ শেষে ব্রিফিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ তথ্য জানান। রাত সোয়া ৮টায় সংলাপ শুরু হয়ে শেষ হয় ১০টা ১০ মিনিটে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ দল আগামী নির্বাচনেও ঐক্যবদ্ধ থাকবে। এখন একসঙ্গে আছি আগামীতেও থাকবো। সামনে যে কোন লড়াই একসঙ্গে করব। কোন অপশক্তি যদি নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা করে তাহলে ১৪ দল তা ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করবে।

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১৪ দলের যারা উইনেবল প্রার্থী তারা মনোনয়ন পাবেন। খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওনার কি কোন আত্মীয় স্বজন মারা গেছে, না উনি বিদেশে চিকিৎসার জন্য যাবেন। এর কোনটাই নয়, তাহলে প্যারোলে মুক্তি কেন? এভাবে মুক্তি নিয়েতো তিনি নির্বাচন করতে পারবেন না।

এদিকে, ১৪ দলের মুখপাত্র, স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ১৪ দলের শরীকদের মধ্যে কে কয়টি আসন পাবে তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্ভর করবে। এ বিষয়টি আমরা প্রধানমন্ত্রীর ওপর ছেড়ে দিয়েছি।

তিনি বলেন, এ ছাড়া ১৪ দল সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সংবিধানের এক চুল বাইরে গিয়ে নির্বাচন হবে না। একটি গোষ্ঠী নির্বাচন ভন্ডুল করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। আমরা ১৪ দল ঐক্যবদ্ধভাবে তা মোকাবেলা করব।

নাসিম বলেন, সারাদেশের প্রতিটি আসনের জরিপের ফলাফল প্রধানমন্ত্রীর হাতে আছে। সেই ফলাফল অনুযায়ী প্রার্থীরা মনোনয়ন পাবেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »