বার্তাবাংলা ডেস্ক »

পরকীয়া প্রেমিক বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় দুই সন্তান রেখে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মঙ্গলবার ওই প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা সদরের মহালক্ষ্মীপাড়া গ্রামের সৌদি প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী আসমা বেগম (২৭) ব্রাহ্মণপাড়ার টিঅ্যান্ডটি এলাকায় একটি বাসায় ২ সন্তানকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন। তার স্বামী গত ২ বছর আগে সৌদি চলে যান। এ সময় কল্পবাস গ্রামের ইদ্রিস মাস্টারের ছেলে পল্লী চিকিৎসক ডা. হাবিবুর রহমানের সঙ্গে আসমার পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

কিছু দিন ধরে আছমা ডা. হাবিবুর রহমানকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে হাবিবুর রহমান রাজি না হলে তাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। এক পর্যায়ে রাগে ক্ষোভে গত সোমবার রাতে ভাড়া বাসায় আসমা কীটনাশক পান করে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরিবারের লোকজন তাকে প্রথমে ব্রাহ্মণপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার সময় আসমার মৃত্যু হয়।

মরদেহ তার বাবার বাড়িতে নেয়ার পর মঙ্গলবার সকালে থানার এসআই তীর্থংকর দাস সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে নিহতের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে ডা. হাবিবুর রহমানকে আসামি করে মঙ্গলবার থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শামসুদ্দিন মোহাম্মদ ইলিয়াস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »