বার্তাবাংলা ডেস্ক »

লেবাননে থাকা তিন লাখ ফিলিস্তিনি শরণার্থীকে মক্কায় হজ করতে যাওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সৌদি আরব। বুধবার এ ব্যাপারে সৌদি আরব একটি নির্বাহী আদেশ জারি করেছে বলে দেশটির আল আরাবিয়া নামের সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়।

ফিলিস্তিন মানবাধিকার সংস্থার বরাত দিয়ে এক সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয় সৌদি আরব লেবাননে থাকা ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের ভিসা প্রদান বন্ধ করেছে। তবে যাদের কাছে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের পাসপোর্ট আছে তাদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য নয়।

ওই সংস্থাটির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, লেবাননে থাকা সৌদি দূতাবাস দেশটির ট্রাভেল এজেন্টদের বলে দিয়েছে যে যেসব শরণার্থীর ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের পাসপোর্ট নেই তাদের আবেদন যেনো আর গ্রহণ না করে তারা।

ওই মানবাধিকার সংস্থাটি বলে, সৌদি আরবের আকস্মিক এ সিদ্ধান্তে তারা চিন্তিত। সৌদি আরবকে এর কারণ চিহ্নিত করতে হবে নইলে এ সিদ্ধান্ত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের ভবিষ্যতের জন্য একটা মারাত্মক পরিণাম বয়ে নিয়ে আসবে।

আল আরাবিয়ার প্রতিবেদন অনুযায়ী ওই সংস্থাটি এ সিদ্ধান্তের বিষয়ে লেবাননে থাকা সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয় নি। এদিকে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে থাকা ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের দূতাবাস বলছে তারা এখনো এ ব্যাপারে কোনো আনুষ্ঠানিক নির্দেশনা পায় নি।

সংস্থাটি বলে, এ সিদ্ধান্ত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য আরো একটি বোঝা হয়ে দাঁড়াবে। কেননা এর ফলে ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতার আন্দোলন এবং দেশটিতে তাদের চাকরী পাওয়ার সুযোগ বাঁধাগ্রস্ত হবে। এছাড়াও তাদের হজ পালনের পথে প্রতিবন্ধক হবে এ সিদ্ধান্ত।

উল্লেখ্য, চলতি বছর জর্ডানের পাসপোর্টধারী কয়েক হাজার ফিলিস্তিনির হজের আবেদন করার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সৌদি আরব।

এছাড়া ২০১৩ সালে গাজায় বসবাসরত ফিলিস্তিনিদের ওমরাহ হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে দেশটি। মিশরের সেনাবাহিনী ফিলিস্তিনের রাফাহ সীমান্ত অঞ্চল দিয়ে নিয়মিতভাবে শরণার্থী পারাপার হতে দেখলে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »