বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ddan mojinaবার্তাবাংলা ডেস্ক :: বাংলাদেশে কোনো স্থায়ী নৌঘাঁটির প্রয়োজন নেই যুক্তরাষ্ট্রের। তবে বঙ্গোপসাগরসহ সপ্তম নৌবহরের আওতাধীন সামুদ্রিক এলাকা ও নৌপথের নিরাপত্তায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সঙ্গে মার্কিন নৌবাহিনী নিয়মিত মহড়া দেবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সফররত মার্কিন সপ্তম নৌবহরের কমান্ডার ভাইস এডমিরাল স্কট এইচ সুইফট। রোববার ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের আমেরিকান সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

মার্কিন সপ্তম নৌবহরের কমান্ডার ভাইস এডমিরাল স্কট এইচ সুইফ্টের ৭ মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ সফর। ৩ দিনের সফরের দ্বিতীয় দিনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে ভাইস এডমিরাল স্কট সুইফ্ট বলেন, অর্থনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ বাংলাদেশসহ আঞ্চলিক সমুদ্র সীমানার নিরাপত্তায় মার্কিন নৌবাহিনী বাংলাদেশের নৌবাহিনীর সঙ্গে একযোগে কাজ করতে চায়।

সুইফ্ট আরো বলেন, নিয়মিত মহড়া ছাড়াও সমুদ্রপথের নিরাপত্তা ও জরুরি প্রয়োজনের জন্য বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলবে সপ্তম নৌবহর।

এ সময় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ও নীতিনির্ধারণী বেশ কিছু প্রশ্নের জবাব দেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। হেফাজতে ইসলামের কর্মসূচি সম্পর্কে মার্কিন অবস্থানের কথা বলেন তিনি।

দেশের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনা বলেন, সহিংসতা কোনো অবস্থাতেই গ্রহণযোগ্য নয়।

আগামী মে মাসে কৌস্টগার্ডের জন্য ছোট আকারের মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ জ্যভিয়ের এ আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের পতাকা ওড়ানো হবে। ১৫০ নাবিকের প্রশিক্ষণ শেষে ডিসেম্বর নাগাদ জাহাজটি বাংলাদেশে আসবে বলে জানান মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »