বার্তাবাংলা ডেস্ক »

আমাদের এই পৃথিবীতে বিভিন্ন জাতের গাছ আছে। এই সকল গাছের মধ্যে কোন গাছ উপকারি, কোন গাছ অপকারি আবার কোন গাছ সামান্য হলেও ভয়ংকর।

তেমনই একটি গাছ হচ্ছে নেপেন্থেস অ্যাটেনবারোওঘি। এই গাছটির নাম কি আপনি কখনও শুনেছেন? হ্যাঁ, এই গাছটি অন্য সকল গাছ থেকে আলাদা।

কারণ, এই গাছটি হচ্ছে ভয়ংকর মাংসাশী গাছ। গাছটি দেখতে যত সুন্দর আর নিরীহই হোক না কেন, গাছটি আসলে একটি মাংসাশী গাছ। নানা কীটপতঙ্গ, এমনকি বড় বড় ইদুর পর্যন্ত গিলে খায় এটি। ২০০০ সালের দিকে এই গাছটির প্রথম সন্ধান মিললেও সম্প্রতি গাছটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা।

ফিলিপাইনের পালাওয়ানের নির্জন পাহাড়ী এলাকায় এই গাছের দেখা মিলেছে। গাছটির বৈজ্ঞানিক নাম নেপেন্থেস অ্যাটেনবারোওঘি। এই পর্যন্ত পাওয়া কলসি আকৃতির গাছের মধ্যে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহৎ এই গাছ উচ্চতায় চার ফুট পর্যন্ত হয়। গাছটি শিকার ধরে সাধারণত তার শরীরের কলসির মতো এক জাতীয় অংশ দ্বারা।

এই অংশটি গাছের শরীরের বিভিন্ন অংশে ঝুলে থাকে। এই কলসির মতো কাঠামোর মধ্যে এক ধরনের তরল পদার্থ থাকে। এই তরলের বিশেষ অ্যানজাইম ও এসিড হতে কোন প্রানী পড়া মাত্রই তাকে নিস্তেজ করে দেয়। কোন প্রাণী সহজে এই থাবাই পড়তে চাই না।

তবে গাছটির স্নিগ্ধ, নরম, রং ও সুবাস কীটপতঙ্গসহ নানা প্রাণীকে আকৃষ্ট করে এর থাবার মধ্যে আসতে। সকল কীটপতঙ্গই এই গাছের শিকার তবে নানা প্রাণীর মধ্যে ইদুরই এই মাংসাশী গাছটির কবলে বেশী পড়ে। আবার ইদুরই হচ্ছে এই গাছের সবচেয়ে প্রিয় খাবার। গাছটি বিজ্ঞানী সহ সাধারণ মানুষের মাঝেও ব্যাপক কৌতূহলের সৃষ্টি করেছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »