বগুড়ায় যুবককে ছুরিকাঘাত ও কুপিয়ে হত্যা

কুপিয়ে হত্যা

বগুড়ায় সাকিল আহম্মেদ (২৫) নামের এক যুবককে ছুরিকাঘাত ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। একই ঘটনায় মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন তার এক সঙ্গী। তারও অবস্থা আশঙ্কাজনক।ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে শহরের চকসূত্রাপুর চাপড়পট্টি (সুইপার কলোনি) এলাকায়। নিহত সাকিল শহরের চকফরিদ জামিল মাদরাসা এলাকার শাহজালালের ছেলে এবং আহত বিশাল শহরের রহমান নগরের সোনা মিয়ার ছেলে।

পুলিশ ও প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, শুক্রবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে একটি মোটরসাইকেলযোগে জনৈক মিশু নামের এক যুবকের সঙ্গে সাকিল ও বিশাল শহরের চকসূত্রাপুর চাপড়পাড়া সুইপার কলোনি এলাকায় ঘুরতে যান। এর কিছু সময় পর তাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

এ সময় একটি সশস্ত্র দল তাদের দুজনকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় তারা দ্রুত মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার একপর্যায়ে তাদের বহনকারী মোটরসাইকেলটি আকবরিয়া হোটেল ও থানার সামনে পড়ে গেলে সেখানকার মানুষ ও পথচারীদের মধ্য ভীতি ছড়িয়ে পড়ে। মানুষজনের চিৎকারে পুলিশ সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে দ্রুত বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাকিলকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে শেষখবর পর্যন্ত আহত বিশালের শরীরে অস্ত্রোপচার চলছিল। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ব্যাপারে রাতে সদর ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ (পরিদর্শক) শেখ ফরিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অপরিচিত এক যুবকের সঙ্গে দুইজন যুবক মোটরসাইকেলে সুইপারপট্টি এলাকায় এসেছিলেন বলে শুনেছেন। এ বিষয়ে তিনি ঘটনার বিস্তারিত জানাতে পারেননি।অপরদিকে এ বিষয়ে বগুড়া সদর থানার পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) কামরুজ্জামানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাকিলের মৃত্যু ও বিশালের আহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করে জানান, অপরিচিত যুবকের বিষয়টি নিশ্চিত নন তিনি। তিনিও হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণ এবং ঘটনায় জরিতদের বিষয়ে কোনো ধারণা দিতে পারেননি।