বার্তাবাংলা ডেস্ক »

চলতি বছরের ৩০ মার্চ পর্যন্ত নয় মাসের (২০১৭ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ) হিসাবে ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের মুনাফা আগের বছরের তুলনায় কমেছে।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাব’র (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করা ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের লেনদেন আগামী রোববার (৯ সেপ্টম্বর) থেকে শুরু হবে।

শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরুর আগেই বৃহস্পতিবার কোম্পানিটি অর্থিক অবস্থার এ অবনতির তথ্য প্রকাশ পেল। কোম্পানিটির কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের পর লেনদেন শুরুর আগেই একটি কোম্পানির আর্থিক অবস্থার অবনতি হওয়ার তথ্য প্রকাশ পাওয়া ভালো লক্ষণ না। এটি কোম্পানি দুর্বলতার দিক প্রকাশ করে। আইপিও অনুমোদন দেয়ার বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। সেই সঙ্গে আইপিও’র টাকা কোম্পানিটি সঠিক খাতে ব্যয় করছে কি না সে বিষয়ে কঠোর নজরদারি করতে হবে।

যন্ত্রপাতি ও সরাঞ্জম ক্রয়, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের খরচ মেটাতে চলতি বছরের ৩ এপ্রিল ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়কে আইপিও’র মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন দেয়া হয় পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন।

বিএসইসির অনুমোদন নিয়ে আইপও’র মাধ্যমে ১০ টাকা মূল্যে ২ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে ২২ কোটি টাকা উত্তোল করা ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের শেয়ার রোববার থেকে ‘এন’ গ্রুপের আওতায় ‘ভিএফএসটিডিএল’ ট্রেডিং কোডে ডিএসইতে লেনদেন হবে। এই প্রতিষ্ঠানটির কোম্পানি কোড হবে ১৭৪৭৮।

লেনদেন শুরুর আগে বৃহস্পতিবার ডিএসইকে কোম্পানিটি জানিয়েছে চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে ব্যবসা করে কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৪ কোটি ৬০ লাখ ৭০ হাজার টাকা। প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে এই মুনাফার পরিমাণ ৭৩ পয়সা।

আগের বছরের একই সময়ে প্রতিষ্ঠানটি কর পরবর্তী মুনাফা করে ৪ কোটি ৭০ লাখ ১০ হাজার টাকা। আর শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয় ৭৫ পয়সা। সে হিসাবে আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির মোট মুনাফা কমেছে ৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি মুনাফা কমেছে ২ পয়সা।

চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকের মতো ২০১৭ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত নয় মাসের হিসাবেও কোম্পানিটির মুনাফা কমেছে। ২০১৭ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত ব্যবসা করে কোম্পানিটি মুনাফা করেছে ৯ কোটি ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এতে শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৫০ পয়সা।

আগের হিসাব বছরের একই সময়ে কোম্পানিটি মোট মুনাফা করে ৯ কোটি ৬৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা। এতে শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয় ১ টাকা ৫৪ পয়সা। এ হিসাবে আগের বছরের তুলনায় ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের মোট মুনাফা কমেছে ২৩ লাখ ২০ হাজার টাকা। আর প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে মুনাফা কমেছে ৪ পয়সা।

কোম্পানিটিকে পুঁজিবাজারে আনতে ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেছে সিটিজেন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এবং ফাস্ট সিকিউরিজি ইসলামী ক্যাপিটাল অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট।

ডিএসইর এক পরিচালক বলেন, একটি কোম্পানি আইপিও’র মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করলো। এরপর লেনদেন শুরুর আগে যানানো তাদের মুনাফা কমে যাচ্ছে। এটা তো ভালো লক্ষণ না। কোন ভালো কোম্পানির ক্ষেত্রে এমনটি হওয়ার কথা না।

তিনি বলেন, বিএসইসির উচিত পুঁজিবাজারে ভালো ভালো কোম্পানি আনার উদ্যোগ নেয়া। ভালোভাবে যাচাই-বাছাই ছাড়া কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দিলে পুঁজিবাজার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »