হতভাগ্য ছেলেটি কে

হতভাগ্য ছেলেটি

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার রাইসমিল এলাকায় শুক্রবার রাত ১২টার দিকে বাস ও ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজনের পরিচয় জানা গেছে। তবে এখনো নিহত এক যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার আনুমানিক বয়স ২৫ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হবে।

এ ঘটনায় আহত হন আরও ৫ জন। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

নিহতরা হলেন, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের নাচুনি ঘাগোয়া গ্রামের ইমদাদুল ইসলাম (২৫), তার স্ত্রী কাকুলি খাতুন (২০), মেয়ে হেনা খাতুন (৫) ও একই ইউনিয়নের চাচিয়া মীরগঞ্জ গ্রামের আফরুজা খাতুন (৩০)। অন্য এক যুবকের পরিচয় এখনো শনাক্ত হয়নি।

এছাড়া আহতরা হলেন, সাদুল্লাপুর উপজেলার খামার বোয়ালীয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে মুন্নি আক্তার (১৫), সাদুল্লাপুর উপজেলার দক্ষিণ সাহাবাজ (নলডাঙ্গা) গ্রামের শাজাহান মিয়া (২৬), তার স্ত্রী আখি আক্তার (২৩), কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের আল মামুনের স্ত্রী রুমা আক্তার (১৮) ও একই উপজেলার পশ্চিম ঘরোরিয়া গ্রামের মৃত হাসেন আলীর ছেলে আব্দুল হাই (৫০)।

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান, নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজনের পরিচয় জানা গেছে। এখনো নিহত এক যুবকের পরিচয় জানা যায়নি। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেজবাউল হাসেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশে নিহতদের দাফনের জন্য প্রত্যেক পরিবারকে ৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার রাত ১২টার দিকে গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে যায়া একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের রাইসমিল এলাকায় একটি ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেয়ার পর একজন মারা যান।