বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দ্বিতীয় দিনেই সাউদাম্পটন টেস্ট ভারত জিতে যায়নি, তবে একটা বিজয় তো হয়েছেই। ১৯৫ রানে ৮ উইকেট ফেলে দেওয়ার পরও প্রথম ইনিংসে ইংলিশরা লিড পায়নি। শেষ পর্যন্ত ২৭ রানের লিড পেয়েছে ভারত। আর এটি সম্ভব হয়েছে চেতেশ্বর পূজারার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সৌজন্যে।

প্রথম ইনিংসের ইংল্যান্ডের চেয়ে তখনো ৫১ রান পিছিয়ে ভারত। ভারতের ২ উইকেট ফেলে দিলেই হচ্ছে, ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুটের চোখেমুখে সম্ভাব্য লিডের খুশি উঁকিঝুকি দিচ্ছে। কিন্তু উইকেটে যে তখনো ৭৪ রানে অপরাজিত চেতেশ্বর পূজারা। হিসাবটা তিনিই বদলে দিলেন। ঈশান্ত শর্মাকে নিয়ে নবম উইকেটে যোগ করলেন ৩২ রান। শেষ উইকেটে জসপ্রীত বুমরাকে নিয়ে আরও ৪৬ রান। পূজারার অপরাজিত ১৩২ রানের সুবাদে প্রথম ইনিংসে ভারত অলআউট হওয়ার আগে করল ২৭৩ রান।

ব্যাট হাতে পূজারা এভাবে দিনটা নিজের করে না নিলে ইংল্যান্ডের নায়ক হতে পারতেন মঈন আলী। চা বিরতির ঠিক আগে আগে ঋষভ পন্তকে আউট করে শুরু। বিরতির পর ফিরিয়েছেন হার্দিক পান্ডিয়া, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, মোহাম্মদ শামি ও ঈশান্ত শর্মাকে। তাঁর ঘূর্নিতে দিশেহারা হয়ে ৪ উইকেটে ১৮১ থেকে ৮ উইকেটে ১৯৫ হয়ে যায় ভারতের। শেষ পর্যন্ত মঈন নিয়েছেন ৬৩ রানে ৫ উইকেট।

এর আগে বিনা উইকেটে ১৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা ভারত দিনের প্রথম সেশনে হারায় ২ উইকেট। দুটি উইকেটই পেয়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। দিনের চতুর্থ ওভারে এলবিডব্লু লোকেশ রাহুল। আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করেও বাঁচতে পারেননি রাহুল। ভারতের রান তখন ৩৭। পরের ১০ ওভারে একটু খোলসেই ঢুকে যায় ভারতীয়রা। রাহুলের আউটের পর ৬২ বলে মাত্র ১৩ রান আসে। রানটা ৫০ হতে ব্রডের দ্বিতীয় শিকার আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান।

ভারতীয় ইনিংসের সবচেয়ে বড় জুটিটি গড়ে ওঠে এরপরই, চেতেশ্বর পূজারা ও কোহলির সৌজন্যে। তৃতীয় উইকেটে ৯২ রান যোগ করেন তাঁরা দুজন। আগের দিন ব্যাট হাতে দলকে লজ্জার হাত থেকে বাঁচিয়েছিলেন স্যাম কারেন। ইংলিশ অলরাউন্ডার আজ সাউদাম্পটন টেস্টের দ্বিতীয় দিনেও দলকে বাঁচালেন, এবার বিরাট কোহলির হাত থেকে।
আজ টেস্টে ৬ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন কোহলি। থার্ডম্যান দিয়ে চার মেরে মাইলফলক ছোঁয়ার পর ভারত অধিনায়কের ব্যাট কালও ইঙ্গিত দিচ্ছিল বড় কিছু করার। হয়নি কোহলির নিজের দোষেই। কারেনের অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বলটাকে তাড়া করে প্রথম স্লিপে অ্যালিস্টার কুকের ক্যাচ হয়ে যান। তৃতীয় ম্যাচে এসে প্রথমবার বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যানের উইকেট পেয়ে গেলেন কারেন। ১১৯ ইনিংসে ৬ হাজার রান ছোঁয়া কোহলি ফিরলেন ৪৬ রানে। ভারতীয়দের মধ্যে এর চেয়ে কম ইনিংসে ৬ হাজারে ঢুকেছেন শুধু সুনীল গাভাস্কার (১১৭ ইনিংস)।

কোহলি ফিরেছেন দলকে ১৪২ রানে রেখে তৃতীয় উইকেট হিসেবে। ৫ ওভার পর স্কোরকার্ডে আরও ১৯ রান যোগ হতেই আউট অজিঙ্কা রাহানে। বেন স্টোকসের বলে এলবিডব্লু হওয়ার পর রিভিউ নিয়েও কাজ হয়নি রাহানের। টপ ও মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা দ্যুতি না ছড়ালেও সমস্যা হয়নি। পূজারা লেজের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে একাই লড়াই চালিয়েছেন। খেলেছেন দর্শনীয় এক ইনিংস।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »