বার্তাবাংলা ডেস্ক »

এক সময়ের আলোচিত মডেল ও অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি অনেক দিন ধরেই শোবিজে নেই। ‘বাংলালিংক, দেশে’র বিজ্ঞাপন দিয়ে রাতারাতি পেয়েছিলেন আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। একে একে নাটক বিজ্ঞাপনে কাজ করে নিজের অবস্থান বেশ পাকাপোক্তই করে নিয়েছিলেন। ছোট পর্দা ছাপিয়ে বড় পর্দায় জুটি বেঁধেছিলেন ঢাকাই ছবির শীর্ষনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে।

২০১২ সালে মুক্তি পাওয়া ‘সে আমার মন কেড়েছে’ ছবিটি দিয়ে বেশ আলোচনায় ছিলেন শাকিব খানের এ নায়িকা। এরপর ব্যক্তিগত জীবনের উত্থান-পতন, বিয়ে, বিচ্ছেদ, মিডিয়া থেকে আড়াল হওয়া, মাদকাসক্তি সব মিলিয়ে তার জীবন হয়ে উঠেছিল বিশৃঙ্খল ও বিপর্যস্ত। এরপর তাকে মাঝে নাটকে দেখা গেলেও নিয়মিত হননি আর। অনেকদিন হয়ে গেলো মিডিয়ার আড়ালেই রয়েছেন তিনি।

জানা যায়, একমাত্র ওয়ারিশাকে নিয়ে কানাডার মন্ট্রিলে রয়েছেন এ অভিনেত্রী। সেখানেই বসবাস করছেন তিনি। এদিকে গেলো কিছুদিন আগে ট্রাভেল শোতে অংশ নিতে কানাডায় পাড়ি জমান চিত্রনায়ক নিরব। কানাডার বিভিন্ন শহরে ঘুরে ঘুরে শো করছেন তিনি। গতকাল কানাডার টরেন্টোতে নিরবের সঙ্গে হঠাৎ দেখা হয় বান্ধবী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নির সঙ্গে।

তিন্নির বন্ধু চিত্রনায়ক নিরব আরও জানান, তিন্নি তার মেয়ে ওয়ারিশাকে কানাডাতে স্কুলে ভর্তি করেছে। এখানেই পড়াশোনা করবে সে। অনেক দিন ধরে মিডিয়ার বাইরে সে। মাঝখানে ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বেশকিছু ঝামেলা পার করতে হয়েছে তাকে। এখন সে পুরোপুরি তার মেয়েকে নিয়েই ব্যস্ত! এখন পর্যন্ত অভিনয়ে ফেরার বিষয়টা নিশ্চিত বলতে পারছে না তবে ফিরতেও পারেন।

ক্যারিয়ারের একটা পর্যায়ে শোবিজের কাজ নিয়ে তুমুল ব্যস্ত ছিলেন এ অভিনেত্রী। এরপর একটা সময় গিয়ে ব্যক্তিজীবনে হতাশার কারণে শোবিজ থেকে এক প্রকার নিজেকে দূরে সরিয়ে নেন। তারপর মাঝেমধ্যে আবার টুকটাক নাটকে অভিনয়ও করেছেন। এর মধ্যে আবার রিহ্যাবে গিয়েও বেশ কিছুদিন কাটাতে হয়েছে তাকে। তিন্নি ২০০৬ সালের ২৮ ডিসেম্বর অভিনেতা আদনান ফারুক হিল্লোলকে বিয়ে করেন।

দাম্পত্য কলহের জের ধরেই ২০০৯ সালের শেষের দিকে তিন্নি-হিল্লোল আলাদা থাকতে শুরু করেন। তার বেশ ক’বছর পর তাদের বিচ্ছেদের খবর প্রকাশ হয়। এরপর ২০১৪ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি আদনান হুদা সাদকে বিয়ে করেন তিন্নি। ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে এ খবরে প্রকাশ হয় তিন্নির দ্বিতীয় বিয়ের কথা। এ সংসারও তার সুখের হয়নি। বিচ্ছেদে জড়ান তিনি।

২০০৪ সালে তিন্নি মিস বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর অসংখ্যা জনপ্রিয় টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্দেশনায় একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত হন তিনি। এছাড়া নূরুল আলম আতিকের ‘ডুবসাঁতার’, মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ চলচ্চিত্রগুলোতে অভিনয় করেও বেশ প্রশংসা কুড়ান।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »