বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দুইদিন যুদ্ধ করে অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেল এক বছরের ফুটফুটে শিশু আফিফা। বৃহস্পতিবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আফিফার বাবা হারুন উর রশিদ।

মঙ্গলবার দুপুরে শহরের চৌড়হাস মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা ‘গঞ্জেরাজ’ নামের বাসের সামনে দিয়ে শিশু আফিফাকে কোলে নিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন মা রিনা বেগম। হঠাৎ চালক বাসটি চালিয়ে রিনা বেগমকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে মায়ের কোল থেকে রাস্তার উপর ছিটকে পড়ে গুরুত্বর আহত হয় শিশু আফিফা।

পরে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় মা-মেয়েকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে শিশুটির অবস্থার অবনতি হলে তাকে ওইদিন সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন চিকিৎসকরা। দুইদিন ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে মৃত্যুর কাছে হেরে গেল আফিফা।

এদিকে কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড়ে এ দুর্ঘটনার ভিডিও চিত্র ফেসবুকে ভাইরাল হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। ভিডিও ফুটেজে স্পষ্ট দেখা যায় রাজশাহী ছেড়ে আসা গঞ্জেরাজ (ঢাকা মেট্টো-গ-১৪-০১৭৭) নামের বাসের চালক ইচ্ছে করে রিনা বেগমকে ধাক্কা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের দেয়া সিসি ক্যামেরায় দেখা যাচ্ছে, এক নারী তার শিশুকে বুকে আগলে দাঁড়িয়ে থাকা একটি বাসের সামনে দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। এরই মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা বাসটি কোনো হর্ন না বাজিয়েই পথচারী মাকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে মায়ের কোল থেকে শিশুটি ছিটকে রাস্তার ওপর পড়ে যায়। বাসের ধাক্কায় রক্তাক্ত আহত হন শিশু ও মা।

এ ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার বেলা ১১টায় চৌড়হাস মোড়ে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে কয়েক হাজার সাধারণ মানুষ ও স্কুলের শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন থেকে ঘাতক গঞ্জেরাজ গাড়ির চালককে আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »