বার্তাবাংলা ডেস্ক »

২২ আগস্ট পবিত্র ঈদুল আজহা। ইতোমধ্যে অনেকেই কুরবানির পশু কিনেছেন। এখনো দু’দিন সময় আছে। হাট-বাজারের ঝামেলা এড়াতে খামার থেকেই কিনতে পারেন পশু। কাছাকাছি হলে ঈদের দিন সকালে গিয়েও নিয়ে আসতে পারবেন। বিশেষ করে যারা রাজধানীতে বসবাস করেন, তাদের জন্য এটি উত্তম সুযোগ।

বিভিন্ন এলাকা ছাড়াও রাজধানীর আশপাশে বেশ কয়েকটি খামার রয়েছে। খামার থেকে গরু কিনতে চাইলে চলে যেতে পারেন রাজধানীর কেরানীগঞ্জ এলাকায়। এছাড়া আটিবাজার, বেড়িবাঁধ, জিঞ্জিরা, হযরতপুরে রয়েছে প্রায় ৩শ’র মতো খামার।

খামার থেকে গরুর ওজন মেপে কেনার সুবিধা রয়েছে। কেনার সময় নিজস্ব পশু চিকিৎসক পশু যাচাই-বাছাই করতে সাহায্য করবেন। বিক্রয়োত্তর চিকিৎসা সেবাও পাবেন। তবে এ ক্ষেত্রে চিকিৎসককে পারিশ্রমিক দিতে হয়। খামারিরা ঢাকার ভেতরে যে কোনো স্থানে বিনামূল্যে গরু পৌঁছে দেওয়ার সুবিধাও দিয়ে থাকে।

খামারগুলোতে বিভিন্ন জাতের পশু রয়েছে। এর মধ্যে ভারত থেকে আমদানি করা হাসা জাতের গরু, সিলেটের বড় শিংওয়ালা ফাইটার ষাঁড়, ভুট্টি গরু ইত্যাদি অন্যতম। পাকরা জাতের গরুও পাওয়া যায়। এমনকি পাকিস্তানি শাহিওয়াল, পাকরা এবং নেপালি জাতের মিশ্রণ ছাড়াও দেশি গরু তো রয়েছেই।

হাট-বাজারের চেয়ে তুলনামূলকভাবে দাম কম, ছোট ও মাঝারি গরু বেশি থাকায় খামার থেকে গরু কিনতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করতে পারেন। কারণ হাটে যেতে যাদের যন্ত্রণা মনে হয়, দালালের খপ্পড়কে ভয়- তারা খামার থেকে পশু কিনে আনার জন্য ঢুঁ দিতে পারেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »