বার্তাবাংলা ডেস্ক »

জয় দিয়েই নতুন মৌসুম শুরু করল বার্সেলোনা। শনিবার স্প্যানিশ লা লিগায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে কাতালান ক্লাবটি ৩-০ গোলে হারায় আলাভেসকে। নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই জোড়া গোল করেন দলের প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি। বাকি গোলটি আসে বদলি হিসেবে খেলতে নামা ফিলিপে কোটিনহোর পা থেকে।

আনুষ্ঠানিকভাবে লিগে অধিনায়ক হিসেবে এটাই মেসির প্রথম ম্যাচ। এই ম্যাচেই বার্সেলোনাকে ৬,০০০তম গোলটি উপহার দেন এলএম টেন।

নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলতে থাকে আর্নেস্তো ভালভার্দের দল। একের পর এক আক্রমণে আলাভেসের রক্ষণভাগকে দিশেহারা করে ফেলে মেসি-সুয়ারেজ-দেম্বেলেরা। কিন্তু গোল নামক সোনার হরিণের দেখা পাচ্ছিল না স্বাগতিকরা।

প্রথমার্ধের তৃতীয় মিনিটেই প্রথম সুযোগটা পান লিওনেল মেসি। কিন্তু সেটাকে কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। ষষ্ঠ মিনিটেও গোলপোস্টে শট নিয়ে প্রতিপক্ষের জাল খুঁজে নিতে ব্যর্থ হন কাতালানদের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। আর প্রথমার্ধের ৩৮ মিনিটে মেসির দুর্দান্ত ফ্রি-কিক গোলবারে লেগে বাধাগ্রস্ত হয়। এর আগে ম্যাচের ৩১ মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন লুইস সুয়ারেজ। এভাবেই গোলশূন্য থাকার হতাশা নিয়ে বিরতিতে যায় আর্নেস্তো ভালভার্দের শিষ্যরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও বেশ ক’টি সুযোগ মিস করেন মেসি-দেম্বেলে। অবশেষে ম্যাচের ৬৪ মিনিটে আসে সেই কাঙ্ক্ষিত মুহূর্ত। আলাভেসের ডি-বক্সের বাইরে ফাউলের শিকার হন মেসি। আর সেই গড়ানো ফ্রি-কিক থেকে গোল করেই কাতালানদের প্রথম এগিয়ে দেন দলপতি মেসি। ফ্রি-কিকের সময় আলাভেসের খেলোয়াড়রা লাফিয়ে ওঠেন। আর কৌশলগত দক্ষতায় নিচু করে শট নেন এলএম টেন। জাদুকরী এক গোল করেই স্বাগতিক সমর্থকদের উচ্ছ্বাসের জোয়ারে ভাসান মেসি। স্প্যানিশ লা লিগায় এটা বার্সার ৬০০০তম গোল।

দ্বিতীয়ার্ধের ৮৩ মিনিটে বার্সেলোনার জার্সিতে দ্বিতীয় গোলটি করেন ফিলিপে কোটিনহো। বুলেট গতির শটে কাতালান ক্লাবটির গোল ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বদলি হিসেবে খেলতে নামা এই ব্রাজিলিয়ান। এর ফলে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শেষ করে স্বাগতিকরা।

কিন্তু ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে আলাভেসের জালে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন লিওনেল মেসি। কাতালানদের উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজের সহায়তায় এই গোলটি করেন তিনি। এর ফলে ৩-০ গোলের জয়ে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়ে মেসি-সুয়ারেজরা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »