বার্তাবাংলা ডেস্ক »

হবিগঞ্জের বাহুবলে শাহনেওয়াজ আলম নামে এক যুবকের ছুরিকাঘাতে ওয়াহিদ মিয়া (৪০) মিয়া নামে এক ব্যক্তি মারা গেছেন। তার সহোদর কাওসার মিয়া (২৫) ও আব্দুল আলী গুরুতর আহত।

শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার পুটিজুরী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওয়াহিদ মিয়া উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের মীরেরপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহ’র ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার পুটিজুরী বাজারের ফুটপাতের স্টলে শেওড়াতুলী গ্রামের মৃত আব্দুল মনাফের ছেলে শাহনেওয়াজ আলম উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে মীরেরপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহর ছেলে ওয়াহিদ মিয়া ও তার সহোদর কাওসার মিয়াকে। এ সময় চা স্টল মালিক একই গ্রামের আব্দুল আলীও (৩৭) ছুরিকাহত হন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওয়াহিদ মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন এবং কাওসার ও আব্দুল আলীকে সিলেটে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে স্নানঘাট ইউপি চেয়ারম্যান ফেরদৌস আলম বলেন, শাহনেওয়াজ আলম পুটিজুরী ইউপি চেয়ারম্যান শামছুদ্দিন তারা মিয়ার ভাগিনা। তার সঙ্গে আমার কোনো বিরোধ নেই। শুনেছি রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

রাত ১২টায় বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাসুক আলী ঘটনাস্থল থেকে জানান, নিহত ওয়াহিদ মিয়ার ভাই আহত কাওসার মিয়াকে সিলেট নেয়ার পথে মারা গেছেন। এক ঘণ্টা পর রাত ১টায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করে সাংবাদিকদের জানান, আমরা প্রথমে খবর পেয়েছিলাম কাওসার মারা গেছেন। প্রকৃতপক্ষে তিনি মারা যাননি। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার অস্ত্রোপচার চলছে। তার আবস্থা আশঙ্কাজনক।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »