বার্তাবাংলা ডেস্ক »

রাশিয়া বিশ্বকাপ ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার সবচেয়ে ঘটনাবহুল খেলোয়াড় ছিলেন মারিও মানজুকিচ। প্রথমত তার আত্মঘাতী গোলেই ম্যাচে পিছিয়ে পড়ে ক্রোয়েশিয়া। পরে দ্বিতীয়ার্ধে তিনিই আবার ব্যবধান কমিয়ে আশা জাগান ক্রোয়াট শিবিরে।

তবে ক্রোয়েশিয়া পরে আর জিততে পারেনি। ৪-২ ব্যবধানে হেরে শেষ হয় ক্রোয়েশিয়ার স্বপ্নীল বিশ্বকাপ। দেশটির ফাইনালের সেই ট্র্যাজিক চরিত্র মারিও মানজুকিচ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আর কখনোই গায়ে জড়াবেন না ক্রোয়েশিয়া জার্সি। আনুষ্ঠানিকাবে বিদায় জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক ফুটবলকে।

২০০৭ সালে প্রথমবারের মতো ক্রোয়েশিয়ার হয়ে মাঠে নেমেছিলেন মানজুকিচ। এরপর গত ১১ বছরে আরো ৮৮ বার জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। করেছেন দেশের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৩ গোলের রেকর্ড।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে নিজের অবসরের কথা জানিয়ে মানজুকিচ লিখেন, ‘বিশ্বকাপে রানারআপ হয়ে আমি আরো বেশি শক্ত হয়েছি, প্রাপ্তির খাতা ভারী হয়েছে। বিশ্বকাপ সাফল্যের কারণেই আমার এই কঠিন সিদ্ধান্ত নেয়াটা কিছুটা সহজ হয়েছে। অবসর নেয়ার জন্য আসলে কোন সঠিক সময় নেই। সম্ভব হলে সবাই-ই জাতীয় দলের জন্য আমৃত্যু খেলে যেতাম। এর চেয়ে গর্বের আর কিছু হতে পারে না। কিন্তু আমার মনে হচ্ছে এবার থামা উচিৎ।’

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »