বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কেলেঙ্কারির ঘটনায় তদন্তের অংশ হিসেবে ওই প্রতিষ্ঠানের ৩২ কর্মকর্তাকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এর মধ্যে ৭ জনকে ১৬ আগস্ট, ৮ জনকে ২৮ আগস্ট, ৮ জনকে ২৯ আগস্ট এবং ৯ জনকে ৩০ আগস্ট দুদকে হাজির হতে বলা হয়েছে।

দুদকের উপপরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সামসুল আলমের স্বাক্ষরিত তাদের নির্ধারিত তারিখে দুদকে হাজির হতে বলা হয়েছে।

এই কয়লা খনি থেকে উত্তোলন করে রাখা বিপুল পরিমাণ কয়লা গায়েব হয়ে যাওয়ার পর জ্বালানি সংকটে পড়ে বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র। প্রয়োজনীয় কয়লা না থাকায় ২৩ জুলাই থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ৫২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

নথিপত্রের হিসাব অনুযায়ী, খনি থেকে উত্তোলন করা কয়লা যেখানে স্তূপ করে রাখা হয় সেখানে ১ লাখ ৪২ হাজার টন কয়লা মজুদ থাকার কথা ছিল। অথচ সেখানে এখন এক টন কয়লাও নেই বলে জানান কোম্পানির আরেকজন মহাব্যবস্থাপক। প্রতি টন কয়লার বর্তমান বাজার মূল্য ১৬ হাজার টাকা। সেই হিসাবে ২২৭ কোটি টাকার কয়লার কোনো হদিস নেই।

য়লা গায়েবের ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের বিদায়ী ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ ১৯ জনকে আসামি করে মামলাও হয়েছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »