নিজেদের রোবট নিয়ে প্রতিযোগিতায় যাচ্ছে ৫ কিশোর-কিশোরী

রোবট

বয়স যতই কম হোক না কেন আমরাও দেশকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে পারি- এমন দৃপ্ত শপথ নিয়ে বাংলাদেশের কিশোর-কিশোরী পাড়ি দিচ্ছে মেক্সিকোতে। আনাহিতা আনোয়ারা, লালেহ নাজ বার্গম্যান হোসেন, আরমান খসরু, রাজিন আলী ও সুজয় মাহমুদ- দেশের এই পাঁচ কিশোর-কিশোরী নিজেদের তৈরি রোবট নিয়ে যাচ্ছে সেখানে। আগামী ১৫-১৮ আগস্ট মেক্সিকোতে অনুষ্ঠেয় ‘ফার্স্ট গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক বার্ষিক রোবটিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে তারা। সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছে নিজেদের তৈরি রোবট।

শনিবার রাজধানীর মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তারা জানাল তাদের প্রত্যয়ের কথা।

তাদের তৈরি রোবটের কার্যক্রম প্রদর্শনের মাধ্যমে দেশের প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন ও নতুন সম্ভাবনার কথা তারা আরেকবার জানান দিল। প্রতিযোগীদের উপস্থিতিতে এ প্রতিযোগিতা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরতে টেক একাডেমি এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী আনাহিতা আনোয়ারার জানায়, বিশ্বেও মানুষ জানুক আমরা বাংলাদেশের কিশোর-কিশোরীও রোবটিক প্রযুক্তি নিয়ে এগিয়ে আছি। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে তুলে ধরতেই আমরা রাতদিন পরিশ্রম করে এখন যাচ্ছি তা তুলে ধরতে।

অন্যদিকে আরেকজন সদস্য আরমান খসরু জানায়, তাদের রোবটটি প্রতিযোগিতায় সেরা হবে বলে সে মনে করে। কারণ একটি ভবিষ্যতে কত কম খরচে জ্বালানি সঙ্কট নিরসন করতে রোবট ভূমিকা রাখতে পারে তা তুলে ধরতে তারা এটি তৈরি করেছে। এর পাশাপাশি বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ রোবোটিক প্রযুক্তিতেও কতটা এগিয়েছে তা-ও তারা তুলে ধরতে চায়।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন টেক একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা শামস জাবের। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানগুলোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তি ও প্রতিযোগীদের অভিভাবকবৃন্দ।