বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ফিল্মি কায়দায় বোরকা পরে প্রাক্তন স্ত্রীকে অপহরণের চেষ্টা করেন এক ব্যক্তি। কিন্তু তার পরিকল্পনা সফল হতে দেয়নি স্থানীয় গ্রামবাসীরা। হাতেনাতে ধরে গণপিটুনি দেওয়ার পর তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

ভারতের বীরভূমে ওই ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার শেখ আবদুল্লা নামের এক ব্যক্তি বোরকা পরে এসে তার প্রাক্তন স্ত্রীকে অপহরণ করার চেষ্টা করে।

দু’বছর আগে সিউড়ি থানার অন্তর্গত বাসিন্দা রাজিয়া বিবির সঙ্গে বিয়ে হয় সাঁইথিয়ার বড়া আলুন্দার বাসিন্দা শেখ আবদুল্লার। কিন্তু বিয়ের পরপরই রাজিয়া জানতে পারেন তার স্বামী আবদুল্লা বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। যার মধ্যে নারী পাচার থেকে মাদক পাচার সবই রয়েছে।

রাজিয়া এসব নিয়ে প্রতিবাদ করায় তাকে মারধর করতেন তার স্বামী। এরপরই রাজিয়া ঠিক করেন যে তিনি তার স্বামীর সঙ্গে আর থাকবেন না। ছয়মাস আগেই রাজিয়ার সঙ্গে তার স্বামীর বিবাহবিচ্ছেদ হয়।

রাজিয়া মাঝে মাঝেই সিউড়িতে যেতেন। শেখ আবদুল্লা সে খবর জানতেন। প্রাক্তন স্ত্রীকে তাই মাঝে মাঝেই অনুসরণ করতেন তিনি। রাজিয়াকে পাচার করার উদ্দেশ্য নিয়ে আবদুল্লা অপহরণের পরিকল্পনা করেন। শুক্রবারও রাজিয়া সিউড়িতে আসেন। ওইদিন আবদুল্লা একটি গাড়ি ভাড়া করেন।

বোরকা পরে বোবা মেয়ে সেজে গাড়ির ভেতর বসে থাকেন। গাড়ির চালক রাজিয়াকে বাড়ি পৌঁছে দেবে বলে গাড়িতে বসতে বলে। রাজিয়াও গাড়ির মধ্যে আর এক বোরখা পরা বোবা মহিলাকে দেখে গাড়িতে উঠে পড়েন। এরপর শেখ আবদুল্লা অজ্ঞান করার জন্য রাজিয়ার মুখ চেপে ধরেন তখন গাড়িতেই দু’জনের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়।

সিউড়ি ছাড়ার আগেই এই কাণ্ড দেখতে পায় স্থানীয়রা। তারাই গাড়ি থামিয়ে শেখ আবদুল্লাকে টেনে বের করে বেধড়ক মারধর করতে শুরু করে। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে শেখ আবদুল্লা এবং গাড়ি চালককে গ্রেফতার করে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »