বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাকুরা জেলায় প্রবল বৃষ্টি ও বন্যায় একটি বাড়ি ভেঙে পড়েছে। দু’তলা ওই বাড়ির পাশেই আছে একটি খাল। সেটি গন্ধেশ্বরী নদীতে মিলেছে। নদীর পানি বাড়াতেই খালের পানি বেড়ে সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাড়িটিতে বেশ কয়েকজন বাসিন্দা ছিলেন। বাড়িটি ভেঙে পড়ার আগেই তাদের সেখান থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এদিকে বাকুড়া ও মানকানালির মধ্যে যোগাযোগ প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে। দু’টি জায়গার মধ্যে সংযোগকারী রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে।

শুধু বাকুড়া শহরই নয় পুরো জেলার অবস্থাই বেশ খারাপ। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে রোববার রাত থেকে সোমবার রাতের মধ্যে সেখানে বৃষ্টির পরিমাণ ২শ মিলিমিটারেরও বেশি। কোনও কোনও এলাকার পরিস্থিতি প্রায় বন্যার মতো।

বাকুড়ার কিছু এলাকার অবস্থা বেশি খারাপ। টানা বৃষ্টিতে সেখানে ৬৬৩টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৫২টি বাড়ি পুরোপুরি ভেঙে গেছে। পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকায় দু’টি ত্রাণ শিবির খুলেছে প্রশাসন। তাছাড়া জমে থাকা পানি থেকে যেন রোগ না ছড়ায় তাও নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন।

এদিকে,অবিরাম বৃষ্টিতে ঝাড়গ্রাম পৌরসভার ৭ থেকে ৮টি ওয়ার্ড জলমগ্ন অবস্থায় রয়েছে। বেশ কিছু ওয়ার্ডে পানি কমে গেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, সেখানকার পরিস্থিতি নিয়ে পৌরসভার কাছে একাধিকবার অভিযোগ জানালেও এর কোন সমাধান মেলেনি। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, কয়েকটি ওয়ার্ড পানিতে তলিয়ে গেলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার আপ্রাণ চেষ্টা চলছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »