বার্তাবাংলা ডেস্ক »

বরিশালের হিজলা উপজেলায় মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মা সালমা বেগমকে (৪০) গলাকেটে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে বখাটে আল আমিন (১৮)। এ ঘটনায় বখাটে আল আমিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে এ ঘটনায় নিহতের স্বামী হানিফ সরদার বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় মেমানিয়া ইউনিয়নের ছয়গাঁও গ্রামে এ হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহত সালমা বেগম ছয়গাঁও গ্রামের দিনমজুর হানিফ সরদারের স্ত্রী। বখাটে আল আমিন একই এলাকার মিজানুর রহমান ইউনুসের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, প্রভাবশালী পরিবারের ছেলে আল আমিন হতদরিদ্র পরিবার হানিফ সরদার ও সালমা বেগম দম্পত্তির কিশোরী মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। ওই কিশোরী তা প্রত্যাখান করলে তাকে নানা হুমকি দেয়া হয়। একপর্যায়ে আল আমিনের হুমকির মুখে ও বাধ্য হয়ে তার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়ায় ওই কিশোরী। সম্প্রতি ওই মেয়ের বাবা-মা এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে আল আমিনের পরিবারের কাছে বিচার দেয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আল-আমিন শনিবার সন্ধ্যায় সালমা বেগমকে দা দিয়ে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করে।

হিজলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, আল আমিনকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে সে হত্যার কথা এখনও স্বীকার করেনি । তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের মাধ্যমে পুলিশ নিশ্চিত হতে পেরেছে যে আল আমিনই সালমা বেগমকে হত্যা করেছে।

ওসি আরও জানান, নিহতের স্বামী হানিফ সরদার বখাটে আল আমিনকে একমাত্র আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »