বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণ নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক অধ্যাপক আকমল হোসেনের দেয়া এক বক্তব্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে অধ্যাপক আকমল হোসেনের ব্যাপারে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল।

এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমান, অধ্যাপক জিনাত হুদা, অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর, অধ্যাপক ড. মো. সামাদ প্রমুখ।

গত ১৯ জুলাই কোটা সংস্কার আন্দোলনে শিক্ষক-শিক্ষার্থী নিপীড়ন ও লাঞ্ছনার প্রতিবাদে নিপীড়নবিরোধী শিক্ষকদের ব্যানারে আয়োজিত এক সমাবেশে মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণ নিয়ে ঢাবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক অধ্যাপক আকমল হোসেন বিরূপ মন্তব্য করেন।

অধ্যাপক মাকসুদ কামাল বলেন, ‘অধ্যাপক আকমল হোসেনের বিষয়ে শিক্ষক সমিতি চুপ থাকতে পারে না। আমরা শিক্ষক সমিতি থেকে বলেছি, তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এবং রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে যেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।’

তিনি বলেন, ‘আজ আমরা বলেতে চাই, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর আজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আঘাত করা হয় তখন এ দেশের প্রতিটি ইঞ্চি জায়গার ওপর আঘাত করা হয়। অধ্যাপক আকমল হোসেন গত ৩৭ বছর তার শ্রেণীকক্ষে কী পড়িয়েছেন, সে বিষয়ে দেখারও অবকাশ রয়েছে।’

কোটা সংস্কার আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা শুরু থেকেই যে কথা বলেছি, কোটা সংস্কার আন্দোলন এ দেশের ছাত্রদের অধিকার আদায়ের আন্দোলন নয়। এটা নির্বাচনের বছর, এ কারণে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির লক্ষ্যে এ আন্দোলন করা হচ্ছে।’

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »