বার্তাবাংলা ডেস্ক »

আগামী দুই মাসের মধ্যে দেশের চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট পরিবর্তন ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের আয়োজনে ‘প্রতিবাদী পেশাজীবী বিক্ষোভ সমাবেশে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে মওদুদ বলেন, ‘দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার পর দায়ীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে না পারার ব্যর্থতার জন্য অবিলম্বে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত বলে আমরা মনে করি।’

মওদুদ বলেন, ‘মাহমুদুর রহমানের ওপর যে আক্রমণ হয়েছে, তাতে সারা জাতি স্তম্ভিত, ক্ষুব্ধ। এটা জাতির জন্য কলঙ্কজনক অধ্যায়। তাকে যে রাজনৈতিক কারণে হত্যার উদ্দেশ্যে আদালতে আক্রমণ করা হয়েছে তার প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানাই।’

তিনি বলেন, ‘মাহমুদুর রহমান আইনে বিশ্বাস করেন বলেই কুষ্টিয়ায় একটি ভিত্তিহীন মামলায় জামিন নিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তার ওপর যেভাবে পরিকল্পত আক্রমণ হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক।’

সাবেক এই আইনমন্ত্রী বলেন, ‘পুলিশের সামনে আক্রমণ হয়েছে। কিন্তু সরকার কোনো ব্যবস্থা নিতে সক্ষম হয়নি। সুতরাং আইন ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত। তাদের মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকার কোনো নৈতিক অধিকার নাই।’

তিনি বলেন, ‘এই সরকার কৌশলে সংবাদ মাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। যদি তাদের বিরুদ্ধে কেউ লিখে তারা ব্যবস্থা নেয়। কারণ এটা একটি স্বৈরাচারী সরকার।’

বিএনপির নীতি নির্ধারণী ফোরামের এই নেতা বলেন, ‘আমরা মাঠে নামবো। মাহমুদুর রহমানের রক্ত বৃথা যেতে দেবে না দেশের মানুষ। একদিন এর বিচার হবেই। আন্দোলনের মাধ্যমে আমরা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, বিএনপির গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজ) সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »