বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত করার ‘অপপ্রয়াসের’ প্রতিবাদে সচেতন শিক্ষকদের ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষকদের একাংশ। একই সঙ্গে ঢাবিতে শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত করার কোনো ‘অপপ্রয়াস’ মেনে নেয়া হবে না বলেও তারা ঘোষণা দিয়েছেন।

রোববার (২২ জুলাই) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের মূল ফটকের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতি সমাধানের জন্য শিক্ষক-ছাত্রদের আলোচনায় বসার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, আর দু’বছর পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শতবর্ষ উদযাপন করবে। আমাদের প্রাণের বিশ্ববিদ্যালয়কে আমরা মর্যাদার জায়গা রাখতে চাই। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয়কে স্থিতিশীল রাখতে সবাইকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানাই। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিদের উচিত হবে না বিরোধীদের কোনো ধরনের সুযোগ দেয়া।

অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, কোটার নামে, নিপীড়নের নামে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করা বা কটাক্ষ করা কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না। এসব কাজে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে হবে।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম বলেন, শিক্ষক সমাজ ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ করা কোনোভাবেই মেনে নেবে না। কিন্তু নায্য দাবির সাথে আমরা একমত পোষণ করব।

মানববন্ধনে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশান সিস্টেমস-এর অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম, শিক্ষক সমিতির যুগ্ম-সম্পাদক তাজিন আজিজ চৌধুরী, অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর, অধ্যাপক কে এম সাইফুল ইসলাম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »