বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ctgবার্তবাংলা রিপোর্ট :: যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং চীনের সাংহাই শহরের আদলে কর্ণফুলি নদীর নীচ দিয়ে সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার বলে জানিয়েছেন যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার সেতু ভবনে আয়োজিত সভায় এ কথা বলেন তিনি।

কর্ণফুলি নদীতে দেশে প্রথম বারের মতো এ টানেল নির্মিত হলে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি ব্যবসা বাণিজ্যে ও গতিশীলতা আসবে বলে জানান যোগাযোগমন্ত্রী।

যোগাযোগ মন্ত্রী জানান, সরকারের চলতি মেয়াদে জমি অধিগ্রহণসহ টানেল নির্মাণের আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া শুরু হবে।

তবে কবে নাগাদ টানেল নির্মাণের মূল কাজ শুরু হবে এ বিষয়ে স্পস্ট কিছু জানাননি যোগাযোগমন্ত্রী।

এরইমধ্যে প্রকল্পের সম্ভ্যাবতা যাচাই শেষে প্রতিবেদনও জমা দিয়েছে চীনের একটি প্রতিষ্ঠান। প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ এ টানেল নির্মাণে ৫ হাজার ৫৩৪ কোটি টাকা।

দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম কর্ণফুলি নদী দিয়ে কার্যত দুইভাগে বিভক্ত। নদীতে বিদ্যমান দুটি সেতুও নগরীর দুই অংশের যান চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত নয়। জলাবদ্ধতা ও খালগুলোর মুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ব্যহত হচ্ছে নৌ-যোগাযোগ ব্যবস্থাও।

প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ পলি জমায় নষ্ট হচ্ছে নদীর স্বাভাবিক গতি।

এ অবস্থায় নদীর নাব্যতা রক্ষা, নগরীর দুপাশ ও গভীর সমুদ্র বন্দরের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে কর্ণফুলি নদীর নীচে একটি টানেল নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নেয় সরকার। প্রায় সাড়ে বারো কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পের প্রাথমিক সম্ভাব্যতাও যাচাই শেষ হয়েছে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »