বার্তাবাংলা ডেস্ক »

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার খান শাওনসহ (২৬) পাঁচজনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও চাঁদাবাজীর মামলা দায়ের করা হয়েছে। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চাঁদা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে আব্দুল হেকিম (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে অপহরণের অভিযোগে অপহৃতার ভাই হেলাল মিয়া রোববার বাদি হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় ছাত্রলীগ নেতা শাওনের চাচা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন খান (৬০), লুৎফর রহমান (৩০), শহীদুল (২৩) ও শিমুল (২৪) ও ৩ ছাত্রলীগ নেতার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলায় বিকেলে উদ্ধার হওয়া আব্দুল হেকিমকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোমিনুন্নিছা খানমের কাছে অপহরণ ও চাঁদাবাজীর ঘটনাসহ জড়িতদের নাম উল্লেখ করে জবানবন্দি প্রদান করেন। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

অন্যদিকে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগ নেতা শাওনের পরিবার। তাদের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও দ্বন্দ্বের কারণে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাদের হয়রানি করতেই এ মামলা করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঝিনাইগাতী উপজেলার সীমান্তবর্তী রাংটিয়া এলাকায় জমি নিয়ে স্থানীয় বিরোধকে পুঁজি করে শনিবার দুপুরে একটি প্রভাবশালী মহল ওই জমির মালিক ঝিনাইগাতী উপজেলার রাংটিয়া গ্রামের তমিজ উদ্দিন শেখের ছেলে আব্দুল হেকিমের কাছে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।

তাৎক্ষণিক ওই চাঁদার টাকা না পেয়ে তারা সন্ধ্যার মধ্যে সময় দিয়ে শাসিয়ে আসেন। সন্ধ্যার পরও চাঁদার টাকা না দেয়ায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাওনের নেতৃত্বে ৫/৬ জন যুবক একটি সাদা মাইক্রোবাসে করে রাংটিয়া এলাকায় থেকে আব্দুল হেকিমকে মারধর ও অপহরণ করে ঝিনাইগাতী সদর এলাকায় নিয়ে যায়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ অপহৃত আব্দুল হেকিমকে উদ্ধার করে এবং তাদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাস জব্দ করে।

ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, ওই ঘটনায় অভিযোগ ও প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে নিয়মিত মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »