বার্তাবাংলা ডেস্ক »

কুমিল্লায় হত্যা ও নাশকতার দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া ছয় মাসের জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল আবেদনের আজ শুনানি হওয়ার দিন ধার্য রয়েছে। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদেস্যের আপিল বিভাগে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

২৮ মে কুমিল্লায় হত্যা ও নাশকতার দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছয় মসের জামিন দেন হাইকোর্ট। পরের দিন মঙ্গলবার (২৯ মে) হাইকোর্টের দেয়া ছয় মাসের জামিন স্থগিত করে আদেশ দেন আপিল বিভাগের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর চেম্বারজজ আদালত। একই সঙ্গে জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল আবেদনের শুনানির জন্য আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। আজ (৩১ মে, বৃহস্পতিবার) নির্ধারিত দিনে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ বলেন, সোমবার (২৮ মে) হাইকোর্ট খালেদা জিয়ার ৬ মাসের জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেয়ার পর তা স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করেছিলাম। সেই আবেদনের শুনানি শেষে আদালত জামিন স্থগিত করে নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়েছেন।

এর আগে সোমবার সকালে বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ কুমিল্লার দুই মামলায় জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেন। তবে নড়াইলের মানহানির মামলায় আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির অভিযোগের মামলায় খালেদা জিয়াকে গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। সেই থেকে তিনি কারাবন্দি রয়েছেন পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে। ওই মামলায় আপিলের পর খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। যেটি গত ১৭ মে বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

তবে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অন্তত আরও ছয়টি মামলায় শোন অ্যারেস্ট থাকায় সেগুলোতে জামিন পেতে হবে। জামিন পেলেই কেবল তিনি মুক্তি পেতে পাবেন। এর মধ্যে কুমিল্লায় তিনটি ও নড়াইলে একটি, বাকিগুলো ঢাকার।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »