বার্তাবাংলা ডেস্ক »

মাত্র ৩ হাজার ৬০০ কোটি ডলার গেছে খোয়া! বাংলাদেশি মুদ্রায় তা ২ লাখ ৯৫ হাজার ২০০ কোটি টাকা। মাত্র এক দিনে শেয়ারবাজারে ঠিক এই পরিমাণ বাজারমূল্য হারিয়েছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক। ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হওয়ার অভিযোগ ওঠার পর ওয়ালস্ট্রিটে নড়বড়ে হয়ে যায় ফেসবুকের অবস্থান। বিশ্লেষকেরা বলছেন, নতুন অভিযোগে অস্তিত্বের সংকটে পড়েছে ফেসবুক। এতে একদিকে যেমন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটির ওপর ব্যবহারকারীদের আস্থা কমে যেতে পারে, অন্যদিকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ব্যবসায়িক সুনাম।

অভিযোগ উঠেছে, কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নামের একটি প্রতিষ্ঠানের অ্যাপ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিল ফেসবুক। ওই অ্যাপের মাধ্যমে কোটি কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। সেই তথ্য পরে ব্যবহার করা হয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের কাজে। এ কাজের সঙ্গে জড়িত এক অধ্যাপক সম্প্রতি মুখ খোলায় প্রকাশ্যে এসেছে সবকিছু। এখন পুরো বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) বিভিন্ন দেশের রাজনীতিবিদেরা। তদন্তও শুরু হয়ে গেছে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর গতকাল সোমবার ফেসবুকের শেয়ারের দামে ধস নামে। প্রতি শেয়ারের দাম ১৭২ ডলার ৫৬ সেন্টে নেমে গেছে। এক দিনেই ফেসবুকের শেয়ারের দাম কমেছে ৬ দশমিক ৭ শতাংশ। গত কয়েক বছরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের দাম এতটা কমে যাওয়া নজিরবিহীন। শুধু ফেসবুক নয়, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অন্যান্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানও। ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, নাসদাকের শেয়ারের দাম কমেছে ১ দশমিক ৮ শতাংশ হারে। অ্যালফাবেট বা গুগলের শেয়ারের দাম কমেছে ৩ দশমিক ৫ শতাংশ। আমাজনের দাম কমেছে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। অ্যাপলের প্রতিটি শেয়ার লেনদেন হয়েছে আগের চেয়ে ২ শতাংশ কম দামে। অন্যদিকে, মাইক্রোসফটের শেয়ারের দাম ২ দশমিক ২ শতাংশ কমে গেছে।

ফেসবুকের এই কেলেঙ্কারিতে সরব হয়েছেন সরকার ও রাজনীতির বাঘা বাঘা ব্যক্তি। বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এ ঘটনাকে ‘অত্যন্ত উদ্বেগজনক’ বলে অভিহিত করেছেন। কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার লন্ডন কার্যালয়ে তল্লাশি চালানোর অনুমতি চেয়েছে দেশটির তথ্য সুরক্ষা কর্তৃপক্ষ।

অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেটিক ও রিপাবলিকান—উভয় রাজনৈতিক দলের সিনেটররা তথ্য নিরাপত্তা নিয়ে শুনানির ডাক দিয়েছেন। ডেমোক্র্যাট সিনেটর অ্যামি ক্লোবুশার ও রিপাবলিকান-দলীয় জন কেনেডি বলেছেন, তাঁরা শুনানিতে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান। একই সঙ্গে অন্যান্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রধানদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করার কথা বলেছেন তাঁরা।

অভিযোগের মুখে গত শুক্রবার কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নামের ওই পরামর্শক প্রতিষ্ঠানকে বরখাস্ত করেছে ফেসবুক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির পক্ষ থেকে দেওয়া বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, নিয়মভঙ্গকারী একজন গবেষকের কাছ থেকে ব্যবহারকারীদের তথ্য পেয়েছিল কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। তবে এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »