মাহমুদ মনি »

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত জার্মান চিত্রশিল্পী ও ডিজাইনার ইয়াসমিন করিমের লেখা ‘Die Symbolwelt Bangladeschs‘ (বাংলাদেশের প্রতীক) সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে। জার্মানির প্রসিদ্ধ প্রকাশন প্রতিষ্ঠান August Dreesbach Verlag (আওগুস্ট ড্রিজবাখ ফারলাগ ) থেকে প্রকাশিত বইটিতে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক এবং ঐতিহ্যগত বিভিন্ন চিহ্নাবলি তুলে ধরেছেন লেখক। প্রাচীন দেবদেবীর মূর্তি থেকে শুরু করে মুসলিম ও গ্রামবাংলার নানা ঐতিহ্য এমনকি রিকশায় থাকা কারুকাজও নিজের চিত্রকর্ম আর লেখনীর মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছেন তরুণ শিল্পী ইয়াসমিন করিম। জার্মান ভাষায় লেখা ওই বইটির দাম ১৯ ইউরো।

মূলত যেসব জার্মান ভাষাভাষী বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে জানতে-বুঝতে চাইবে তাদের জন্য এই গ্রন্থটি খুবই সয়াহক হবে বলে মনে করেন তিনি।  ইয়াসমিন করিম বার্তবাংলাকে বলেন, জার্মানিতে জন্ম এবং বেড়ে ওঠা হলেও নিজেকে আমি বাংলাদেশেরই সন্তান মনে করি। বাংলাদেশকে আমি অনেক ভালোবাসি। বাংলাদেশের প্রতি অফুরান ভালোবাসা থেকেই এই বইটি প্রকাশ করেছি। যারা বাংলাদেশের কৃষ্টি-কালচারকে জানতে চাইবে তাদের কাছে এই বইটি একটি মাইলফলক হবে বলে আমি করি।

চিত্রশিল্পী ইয়াসমিনের বাবা বাংলাদেশের জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার বগুড়ার কৃতী সন্তান ফজলুল করিম। তিনি সপরিবারে বসবাস করছেন জার্মানির নর্থরাইন ওয়েস্টফেলিয়া রাজ্যের ভ্যার্ল শহরে। জনাব করিম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় বাংলাদেশ নিয়ে থিসিস করে ইয়াসমিন। ওই থিসিসেরই বর্ধিত রূপ এই বই। বাংলাদেশের প্রতি তার অগাধ ভালোবাসা। বইটির সমৃদ্ধ কন্টেন্ট দেখে প্রকাশক তা প্রকাশের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

প্রসঙ্গত, ইয়াসমিন করিম জার্মানির ক্যাসেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভিজ্যুয়াল কমিউনিকেশনের ওপর মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি বর্তমানে মিউনিখ শহরে চাকরির পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সার হিসেবেও কাজ করছেন। তিন বোনের মধ্যে ইয়াসমিন বড়। অপর দুই বোন সাবিনা করিম একটি এনজিওতে এবং নাদিন করিম কনডোর এয়ারলাইন্সে কর্মরত। তার জার্মান মা আইরিশ করিম ও বাবা কৃতী ফুটবলার ফজলুল করিম অবসরপ্রাপ্ত। ইয়াসমিন এরই মধ্যে শিশুদের নিয়ে তাঁর দ্বিতীয় বই লেখার কাজ শুরু করেছেন।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »