বার্তাবাংলা ডেস্ক »

নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সঙ্গে আলোচনার সম্ভাবনা নাকচ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তার ভাষ্য, বিএনপি এই অবস্থায়ও নির্বাচনে আসবে।
শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচনে বিএনপি যাবে না বলে দলটির নেতাদের বক্তব্যের মধ্যে শনিবার একথা বললেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক।

নির্দলীয় সরকারের অধীনে না হওয়ায় দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিল বিএনপি। এই বছরের শুরুতে অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচনের সময়ও নিরপেক্ষ সরকারের দাবি তুলে তা নিয়ে সংলাপ চাইছে দলটি।

তবে আওয়ামী লীগ নেতারা বরাবরই বলে আসছেন, সংবিধান অনুসরণ করে শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন হবে। তাতে বিএনপি না এলে তাদের কিছু যায়-আসে না।

এর মধ্যে দুর্নীতির মামলায় সাজার পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর দুই দলের দূরত্ব আরও বেড়েছে।

ফেনী সার্কিট হাউসে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের প্রশ্নে বলেন, “খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় বিএনপি আরও বেশি শক্তিশালী হয়েছে বলে দাবি করছে তারা।

“তাহলে কিসের আলোচনা? বিএনপি নির্বাচনে আসবেই, আলোচনার প্রয়োজন নেই।”

খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখেই বিএনপি নির্বাচনে নির্বাচনে অংশ নিতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপির শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের বিষয়ে কাদের বলেন, জোরালো কর্মসূচি পালনের ‘সামর্থ্য নেই’ বলে দলটি শান্তিপুর্ণ কর্মসূচি দিচ্ছে।

খালেদা জিয়ার রায়ের অনুলিপি সরকার আটকে রেখেছে বলে যে অভিযোগ বিএনপি নেতারা করছেন, তা প্রত্যাখ্যান করেন মন্ত্রী কাদের।

“খালেদা জিয়ার মামলার ৬৩২ পৃষ্ঠার রায়ের সার্টিফাইড কপি পেতে যুক্তিসঙ্গত কিছু সময় লাগেই। এ নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি করার প্রয়োজন নেই। শিগগিরই রায়ের কপি পেয়ে যাবে আইনজীবীরা।”

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »