বার্তাবাংলা ডেস্ক »

দলীয় প্রধান খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ শুরু করেছে বিএনপি।

শনিবার সকাল ১১টায় নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে স্বাক্ষর ফরমে সই করে এই কর্মসূচি উদ্বোধন করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এরপর স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ফরমে সই করেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত গণস্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান চলবে বলে জানান বিএনপি মহাসচিব।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাক্ষর নেওয়ার সময় উপস্থিত বিএনপি নেতা-কর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে স্লোগান দিচ্ছিল।

অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতাদের মধ্যে ছিলেন বরকত উল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, জয়নুল আবদিন ফারুক, আবদুস সালাম, গাজী মাযহারুল আনোয়ার, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, আতাউর রহমান ঢালী, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ফজলুল হক মিলন, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শামা ওবায়েদ, মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, বেবী নাজনীন, শহীদুল ইসলাম বাবুল, তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, আবদুল খালেক, আকম মোজাম্মেল হক, আখতারুজ্জামান, হারুনুর রশীদ, শাম্মী আখতার, রফিক শিকদার, বজলুল করীম চৌধুরী আবেদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ও প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি।

উদ্বোধনের পরপরই ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক এলডিপির চেয়ারম্যান অলি আহমেদ ও জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব সাহাদাত হোসেন সেলিম, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, আবদুল্লাহ আল মেহেদী, মাহমুদ খান, ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি চেয়ে স্বাক্ষর করেন।

কর্মসূচির সময় বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। জলকামানের গাড়িও রাখা ছিল কাছাকাছি স্থানে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে নেওয়ার পর প্রথম দফায় দুদিন বিক্ষোভ করেছিল বিএনপি। দ্বিতীয় দফায় ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে টানা তিন দিন মানববন্ধন, অবস্থান ও প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালন করে দলটি।

এরপর গণস্বাক্ষর অভিযানের মধ্য দিয়ে আরও তিন দিনের কর্মসূচি শুরু হল। রোববার সারাদেশে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেবে বিএনপি; ২০ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগরী বাদে জেলা-মহানগরে হবে বিক্ষোভ।

এছাড়া আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অথবা নয়া পল্টনে কার্যালয়ের সামনে জনসভা করার জন্য মহানগর পুলিশের কাছে আবেদনও করেছে বিএনপি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »