বার্তাবাংলা ডেস্ক »

আগামীকালের রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপি ক্রমাগত উসকানি দিচ্ছে এবং দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া কী করে বুঝলেন আদালত তাঁকে সাজা দেবে? সংবাদ সম্মেলন করে তিনি (খালেদা জিয়া) কার্যত আদালতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন।’ রায়ের আগের দিন যে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তা নজিরবিহীন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বুধবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এমন মন্তব্য করেন। রায়কে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের নাশকতা বা নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করা হলে তার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বানও জানান কাদের।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা কোনো সন্ত্রাস ও সহিংসতা সহ্য করব না। সন্ত্রাস ও সহিংসতার মাধ্যমে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে নিজেদের দুর্নীতির অপরাধ ঢেকে রাখা যাবে না। আমরা দেশের সব গণতান্ত্রিক দেশপ্রেমিক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী জনগণকে বিএনপির সন্ত্রাস, দুর্নীতি, নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানাই।’ আগামীকাল ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায়ের দিন ধার্য রয়েছে। ওই মামলার প্রধান আসামি বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। রায়ের আগের দিন আজ বিকেল ৫টার দিকে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।
খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ধানমণ্ডিতে দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগ। সেখানে লিখিত বক্তব্য পড়েন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের সমালোচনা করে সড়কপরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়া আদালতের বিষয়কে রাজনীতির মাঠে এনে ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছেন। এটা তাঁর উচিত হয়নি।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আদালত স্বাধীন। আদালত কি রায় দেবে সেটা আদালতেরই নিজস্ব এখতিয়ার। খালেদা জিয়াকে ধ্বংস করা আমাদের কাজ নয়। এ ধরনের ইচ্ছাও আমাদের নেই।’

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »