বার্তাবাংলা ডেস্ক »

কলকাতার আলীপুর সংশোধনাগার থেকে তিন বাংলাদেশি বন্দী পালিয়ে গেছেন। এই তিন বন্দী হলেন ফারুক, ইমন চৌধুরী ও ফেরদৌস।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় শেষ গণনায় ওই তিনজন উপস্থিত ছিলেন। রোববার সকালে বন্দীদের গণনার সময় তাঁদের পাওয়া যায়নি। এরপর টনক নড়ে কারা কর্তৃপক্ষের। শুরু হয় তল্লাশি। পরে পুলিশ তদন্ত করে জানতে পারে, ওই বন্দীরা গভীর রাতে পালিয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই তিন বন্দী গরাদ কেটে কারাগারের দেয়াল টপকে পালিয়েছেন। তাঁরা দীর্ঘদিন আগে থেকেই পালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন। তাঁরা কারাকক্ষ থেকে বের হয়ে কারাগারের পানির পাইপ খুলে তা দিয়ে কারাগারের দেয়াল টপকান। দেয়ালের অন্য পাশের পেয়ারাগাছের সঙ্গে গায়ে থাকা চাদর দিয়ে দড়ি বানিয়ে তা দিয়ে ১৫ ফুট উচ্চতার দেয়াল পার হন। গত ২৫ ডিসেম্বর বন্দীদের ওই চাদর দেওয়া হয়েছিল। দেয়ালের পাশে রয়েছে কলকাতার আদিগঙ্গা নদী।

কারা পুলিশ বলেছে, এই তিন বন্দীর পালানোর ছক ছিল দীর্ঘদিন আগে থেকে। তাঁরা গরাদ কেটে এক ফুটের মতো জায়গা ফাঁকা করে সেখান থেকে এক-একজন করে বেরিয়ে যান।

এত নজরদারি এড়িয়ে এই তিন বন্দীর পলায়নে কারা কর্তৃপক্ষ বিস্মিত। কর্তব্যে অবহেলার অভিযোগে কারাগারের তিন কর্মীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এই তিন বন্দী শিগগিরই আবার ধরা পড়বে বলে পুলিশ আশাবাদী।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »