যশোরে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ লিটন হোসেন বাবু ওরফে ‘পালসার বাবু’ (৩৫) নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার ভোরে উপজেলার কাশীপুর গ্রাম থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত লিটন ঝিকরগাছা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের হাসান আলী খোকনের ছেলে।

র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মো. জিয়াউর রহমান বলেন, আজ ভোর পৌনে পাঁচটার দিকে উপজেলার রিফিউজিপাড়ায় একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ অস্ত্র বেচাকেনা করছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে র‌্যাব সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তিন-চারজন সন্ত্রাসী সেখান থেকে পালিয়ে যায়। একজন সন্ত্রাসী র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। দুই পক্ষের গোলাগুলিতে সন্ত্রাসীদের একজন এবং র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হন। পরে ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, পিস্তলের একটি গুলি ও একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়। অভিযান শেষে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

মেজর মো. জিয়াউর রহমান জানান, অভিযানের সময় আহত র‍্যাবের দুই সদস্য হলেন কনস্টেবল হাসান ও কনস্টেবল মাহবুব। তাঁদের যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সালেহ মো. মাসুদ করিম বলেন, র‌্যাবের কাছ থেকে খবর পেয়ে আজ সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে লিটনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত লিটনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ওসি বলেন, ‘পালসার বাবু’ বড় ধরনের সন্ত্রাসী ছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানায় হত্যা, হত্যাচেষ্টা, বোমাবাজি, মারামারি ও বিস্ফোরক আইনে আটটি মামলা রয়েছে। আব্বাস হোসেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি তিনি। গত বুধবার ঝিকরগাছা উপজেলার চন্দ্রপুর গ্রামে বোমা মেরে ও ছুরিকাঘাতে আব্বাস হোসেনকে হত্যা করা হয়।