বার্তাবাংলা ডেস্ক »

পাকাপাকিভাবে বুটজোড়া তুলে রাখার ঘোষণা দিলেন কাকা। ২০০২-তে ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম সদস্য শীর্ষ পর্যায়ের ফুটবল থেকে সরে গিয়েছিলেন আগেই। যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকারের ক্লাব অরল্যান্ডো এফসির হয়ে খেলছিলেন এই মিডফিল্ডার। তবে আগেই জানিয়েছিলেন অরল্যান্ডের হয়ে আর খেলবেন না। তবে পাকাপাকিভাবে ফুটবলকে বিদায় বললেন বেশ নীরবেই। টুইটার ও ইনস্টাগ্রাম পোস্টের মাধ্যমেই বিদায়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছেন এসি মিলান ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এই তারকা।

বিদায়বেলায় টুইটারে নিজের ধর্মভীরু সত্তারই প্রকাশ ঘটিয়েছেন কাকা, ‘পিতা, তোমাকে ধন্যবাদ। আমি যা ভেবেছিলাম, এটা তার চেয়ে অনেক বেশি ছিল। পরবর্তী সফরের জন্য আমি তৈরি। যিশুর নামে, আমিন।’ এই লেখার সঙ্গে টুইটারে একটি ছবিও পোস্ট করেছেন কাকা। সেখানে দেখা যাচ্ছে, হাঁটু গেঁড়ে দুহাত ওপরে তুলে চোখ বন্ধ করে আছেন কাকা। টি-শার্টের বুকে লেখা ছিল, ‘আমি যিশুর অধীনে’।

এক বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারেরই ইতি টানলেন ব্রাজিলের এই সুপারস্টার। ২০০২-তে বিশ্বকাপ জয়ের পাশাপাশি ২০০৫ ও ২০০৯ সালে কনফেডারেশনস কাপ জিতেছেন তিনি। ক্লাব ফুটবলে এসি মিলানের হয়ে সিরি আ ও চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছেন। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে জিতেছেন লা লিগা ও কোপা দেল রে। ২০০৭ সালে মিলানকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতিয়েছিলেন টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে। সে বছর ব্যালন ডি’অর ও ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড় মনোনীত হয়েছিলেন কাকা। ২০০৯ সালে কনফেডারেশনস কাপের সেরা খেলোয়াড় হয়ে জিতেছিলেন গোল্ডেন বল।

মাঠের খেলা ছাড়লেও ফুটবলের সঙ্গেই থাকবেন কাকা। কোচ হিসেবে যোগ দিতে পারেন তাঁর প্রিয় ক্লাব এসি মিলানেই। ব্রাজিলের গ্লোবো টিভিকে তিনি বলেছেন, ‘আমি ক্লাবের হয়ে অবদান রাখতে চাই, হয়তো ম্যানেজার, স্পোর্টিং ডিরেক্টর, এমন কেউ যে মাঠ ও ক্লাবের মাঝেই থাকবে। পেশাদার ফুটবলার হতে আমি অনেক পরিশ্রম করেছি। নতুন দায়িত্বের জন্যও তৈরি হতে চাই।’ এসি মিলান ইতিমধ্যেই তাঁকে একটি চাকরির প্রস্তাব দিয়েছে, যদিও সেখানে তাঁর দায়িত্ব সম্পর্কে নির্দিষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। সূত্র: গোল ডটকম, দ্য গার্ডিয়ান।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »