বার্তাবাংলা ডেস্ক »

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি হতে যাচ্ছেন রাহুল গান্ধী।

সোমবার কংগ্রেস দলের সভাপতি নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র পেশের শেষ দিন ছিল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত রাহুল ছাড়া আর কেউ মনোনয়ন পত্র জমা দেননি বলে খবর ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর।

রাহুলের পক্ষে মোট ৮৯টি মনোনয়ন পত্র জমা পড়েছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন কংগ্রেসের শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্তরের ৮৯০ জন নেতা।

সভাপতি পদে রাহুলের নাম প্রস্তাবকারীদের মধ্যে তার মা কংগ্রেসের বর্তমান সভাপতি সোনিয়া গান্ধী ও ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংও রয়েছেন বলে জানিয়েছে দ্য হিন্দু। সোনিয়া ১৯ বছর ধরে কংগ্রেসের সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। তিনিই দলটির সবচেয়ে বেশি দিন ধরে দায়িত্ব পালন করা সভাপতি।

কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় এখন রাহুলের সভাপতি হওয়ার জন্য বাকি রইল শুধু দলের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, একথা স্বীকার করলেও সোমবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি কংগ্রেস। আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য ১১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করবে দলটি।

রাহুলের সভাপতি হওয়াকে ঘিরে যে কৌতুহল বিরাজ করবে তাকে ব্যবহার করে গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে ফায়দা নেওয়ার উদ্দেশ্যেই কংগ্রেস সে পর্যন্ত অপেক্ষা করার কৌশল নিয়েছে বলে আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটাভুটি ৯ ডিসেম্বর শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

দেশটির গণমাধ্যমে গুজরাট নির্বাচনের জরিপের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, ভোটের সময় যত ঘনিয়ে আসছে, রাহুলকে ঘিরে আগ্রহ ততই বাড়ছে, নিজ রাজ্যে রাহুল উত্তাপ টের পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

৪৭ বছর বয়সী রাহুল বর্তমানে কংগ্রেসের সহসভাপতি। দীর্ঘদিন ধরে দলপ্রধান হওয়ার অপেক্ষায় থাকা রাহুল মা সোনিয়া গান্ধীর মতোই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে দলের হাল ধরবেন বলে আগে থেকেই ধারণা করছিলেন পর্যবেক্ষকরা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »