বার্তাবাংলা ডেস্ক »

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, ‘এই সরকারের আমলে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটছে। কিন্তু দোষ চাপানো হচ্ছে আমাদের ওপর।’

আজ সোমবার রংপুরের হরকলি ঠাকুরপাড়ায় অগ্নিসংযোগে ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের বাড়িঘর পরিদর্শন করেন বিএনপির নেতা ফখরুল। পরে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। বিএনপির পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত ১১ পরিবারকে ১০ হাজার করে টাকা, একটি শাড়ি, একটি লুঙ্গি, সংঘর্ষে নিহত হাবিবুর রহমানের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা দেওয়া হয়।

ফেসবুকে ধর্মীয় স্ট্যাটাসের জের ধরে ১০ নভেম্বর হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকটি বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কোতোয়ালি, গঙ্গাচড়া ও তারাগঞ্জ থানার পুলিশ গিয়ে শটগানের গুলি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হন।

গতকাল রোববার ঠাকুরপাড়া গ্রামে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে দেখতে গিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক বিনষ্ট করতে অশুভ শক্তি বর্বরোচিত হামলা করেছে বলে অভিযোগ করেন।

কাদেরের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে আজ ফখরুল বলেন, ‘রাজনৈতিক কারণেই আমাদের সুনাম বিনষ্ট করার জন্য আমাদের ওপর দোষ চাপানো হয়েছে। পরে দেখা যায়, তাঁদেরই কিছু লোক এই আগুন দেওয়ার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকে।’

বাংলাদেশ সম্প্রীতির দেশ উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, বছরের পর বছর ধরে হিন্দু-মুসলমানেরা পাশাপাশি বসবাস করে আসছে। যেন একই বৃন্তে দুটি ফুল। কিন্তু এই সম্প্রীতিকে বারবার বিনষ্ট করছে একটি অপশক্তি। সেটা খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে না।

রাজনীতি, নির্বাচন ও ভোটের কারণে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে বারবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে বলেও অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকটি ঘটনায় আমাদের জড়ানো হচ্ছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, সত্য কথা বলায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে। তিনিও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। ষড়যন্ত্রের কারণে তাঁকে দেশ ছাড়তে হয়েছে।

বিএনপি নেতা ফখরুলের সঙ্গে ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিত আসাদুল হাবিব, জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, রইচ আহমেদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি মোজাফ্ফার হোসেন প্রমুখ।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »