বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসব আয়োজনটি অবশেষে আয়োজিত হতে যাচ্ছে। চলতি বছরই ২৬ ডিসেম্বর থেকে ধানমন্ডির আবাহনী মাঠে শুরু হবে পাঁচদিনের এই আয়োজন।

বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের লিটু জানান, এই বছর বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবে উপমহাদেশের যেসব শিল্পীর আসার কথা ছিল, তাদের ‘৮০ শতাংশ’ এই আয়োজনে যোগ দেবেন।

উৎসবটি চলবে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

এর আগে একটি জাতীয় দৈনিকে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন লোকসংগীত উৎসব আয়োজনের জন্য মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়াম বরাদ্দ পাচ্ছে বলে খবর আসে।

লোকসংগীত উৎসব আয়োজনের ওই খবরটিকে ‘ভুয়া’ হিসেবে আখ্যা দিয়ে আবুল খায়ের লিটু বলেন, “বেঙ্গল কখনো ফোক ফেস্টের আয়োজন করেছে! কারা এ খবর দেয়।

“আমরা ক্ল্যাসিক্যাল ফেস্টিভাল আয়োজনের জন্য মিরপুরের ইনডোর স্টেডিয়ামটি বরাদ্দ চেয়েছিলাম। আমাদের আবেদনে অর্থমন্ত্রীরও সায় ছিল। কিন্তু ক্রিকেটের ভরা মৌসুমে এই আয়োজনটি করতে গেলে পরে টার্ফ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পরে আয়োজনটি আমরা ধানমন্ডির আবাহনী মাঠে আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেই। এ বিষয়ে আমাদের অনুমতি নেওয়াও হয়ে গেছে।”
আবুল খায়ের জানিয়েছেন, আগামী সাতদিনের মধ্যেই একটি সংবাদ সম্মেলন ডেকে আয়োজনের বিস্তারিত তুলে ধরবে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন।
এর আগে এ বছরই ২৩ নভেম্বর থেকে বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের ষষ্ঠ আসরটি বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু সেনা ক্রীড়া সংস্থার অনুমতি না মেলায় সেই আয়োজনটি এ বছর করা হবে না বলে জানিয়েছিলেন আবুল খায়ের লিটু।

এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন,, “বিদেশি শিল্পীদের কাছে আর্মি স্টেডিয়াম নিরাপদ স্থান হিসেবে বিবেচিত। চূড়ান্ত পর্যায়ে এসে বিকল্প ভেন্যু বিবেচনার কোনো অবকাশ নেই।”

পরে স্থান নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ায় কাজ এগিয়ে রাখার স্বার্থে বিকল্প স্থান চিহ্নিত করে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে বিদেশি শিল্পীদের অংশগ্রহণের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন তারা।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে নির্ধারিত করও জমা দেওয়া হয়। কিন্তু সেই বিকল্প স্থানেও সারারাত অনুষ্ঠান করার অনুমতি মেলেনি বলে জানান আবুল খায়ের।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »