দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেলেন অমিতাভ

কলকাতার ২৩তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধন করতে গত শুক্রবার কলকাতায় এসেছিলেন বলিউড তারকা অমিতাভ বচ্চন। আরও এসেছিলেন শাহরুখ খান, কাজল, মহেশ ভাট, কমল হাসান ও কুমার শানু। তাঁরা ছিলেন কলকাতার নামী একটি পাঁচতারা হোটেলে।

গতকাল শনিবার সকালে অমিতাভ বচ্চনের মুম্বাই ফিরে যাওয়ার কথা। সকালে অমিতাভ হোটেল থেকে কলকাতা বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেন। সঙ্গে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। ভারতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবার প্রত্যেক তারকার সর্বক্ষণ সাহায্যের জন্য একজন করে মন্ত্রী নিয়োগ করেন। অমিতাভের জন্য ছিলেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। সকালে অমিতাভ বচ্চন হোটেল থেকে রওনা হয়ে ধর্মতলার পথ ধরে ফোর্ট উইলিয়াম পেরোনোর পর হঠাৎ ঝাঁকুনি খান। একটা শব্দও শুনতে পান। অমিতাভ বসেছিলেন গাড়ির বাঁ দিকের সিটে আর মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় ডান দিকে। তাঁদের সঙ্গে ছিল পাইলট আর এসকর্ট কার। এ সময় গাড়ির গতিবেগ ভালোই ছিল। ঝাঁকুনির সঙ্গে সঙ্গে গাড়িটি হঠাৎ বাঁ দিকে হেলে পড়ে। কিছু বোঝার আগেই অমিতাভ বচ্চন এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায় দেখতে পান তাঁদের গাড়ির পেছনের বাঁ দিকের চাকা হঠাৎ খুলে গড়াতে গড়াতে পাশের খোলা মাঠের দিকে চলে যাচ্ছে। এ সময় গাড়ির চালক ব্রেক কষে গাড়িটি থামিয়ে দেন। সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থামায় পাইলট আর এসকর্ট কার। এরপর পুলিশ এসে কনভয়ের সঙ্গে থাকা অন্য একটি গাড়িতে করে অমিতাভ বচ্চন ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে দ্রুত বিমানবন্দরে পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়। এ ঘটনার পর অমিতাভ বচ্চন তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ‘ঈশ্বরকে অশেষ ধন্যবাদ। এ যাত্রায় বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা করেছেন তিনি।’

অমিতাভকে বহন করা দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদেশি মার্সিডিজ গাড়িটি পুলিশ এসে ক্রেন দিয়ে থানায় নিয়ে যায়। জানা গেছে, এরই মধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।